ঢাকা ১ আষাঢ় ১৪৩১, শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪

পুনর্বাসন গৃহহীনদের আত্মমর্যাদা এনে দিয়েছে : প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশ: ১১ জুন ২০২৪, ০৫:০৫ পিএম
আপডেট: ১১ জুন ২০২৪, ০৫:০৫ পিএম
পুনর্বাসন গৃহহীনদের আত্মমর্যাদা এনে দিয়েছে : প্রধানমন্ত্রী
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

পুনর্বাসন গৃহহীন ও ভূমিহীনদের মাঝে আত্মবিশ্বাস ও আত্মমর্যাদা এনে দিয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

তিনি বলেন, ‘ইতোমধ্যে আমরা বিভিন্ন জায়গায় আশ্রয়ণ প্রকল্পের মাধ্যমে মানুষকে বিনামূল্যে ঘর দিয়ে পুনর্বাসন করেছি। এতে তাদের জীবনে পরিবর্তন এসেছে। আত্মবিশ্বাস ও আত্মমর্যাদাবোধ ফিরে এসেছে। একটি দেশকে উন্নত করতে হলে এর সবচেয়ে বেশি প্রয়োজন।’

মঙ্গলবার (১১ জুন) সকালে গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি আশ্রয়ণ প্রকল্পের আওতায় দেশের ১৮ হাজার ৫৬৬টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে জমিসহ ঘর হস্তান্তর কার্যক্রমের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন সরকারপ্রধান।

তিনি বলেন, ‘আমরা ঈদ উপহার হিসেবে ঘরগুলো দিয়েছি। সরকারের লক্ষ্যই হচ্ছে দেশবাসীর সেবা করা। কারণ, আওয়ামী লীগের প্রতি দেশের জনগণের আস্থা থাকায় তারা বার বার আওয়ামী লীগকে ভোট দিয়ে ক্ষমতায় আনে।’

২০০৮ সালের নির্বাচনে আওয়ামী লীগের এককভাবে ২৩৩টি আসনপ্রাপ্তির বিষয়টি উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, ‘দেশের মানুষ আস্থা ও বিশ্বাস রেখেছিল আমাদের ওপর। কাজেই যে মানুষগুলো আমাদের ওপর আস্থা ও বিশ্বাস রেখেছে তাদের সেবা করাই আমাদের দায়িত্ব।’

সরকারপ্রধান বলেন, ‘ঠিক আমার বাবা যেভাবে নিজেকে দেশের জনগণের সেবক হিসেবে ঘোষণা দিয়েছিলেন, সেভাবেই তার পদাঙ্ক অনুসরণ করে দেশের মানুষের সেবা করাকেই আমি কর্তব্য বলে মনে করি।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘লাখো শহীদের রক্তে অর্জিত এই বাংলাদেশ কখনো পিছিয়ে থাকতে পারে না। এই বাংলাদেশকে এগিয়ে নিয়ে যেতেই হবে। দেশের মানুষ ক্ষুধা-দারিদ্র্য থেকে মুক্তি পাবে। প্রতিটি মানুষের জীবন সুন্দর হবে, সেটাই আমাদের লক্ষ্য। যে লক্ষ্য বাস্তবায়নেই আমরা কাজ করে যাচ্ছি।’

তিনি বলেন, “কিছুদিন আগে যে ঘূর্ণিঝড় বা জলোচ্ছ্বাস (রিমেল) হয়ে গেল, সেখানে হাজার হাজার মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ইতোমেধ্যেই আমরা তালিকা করেছি কোন কোন এলাকায় কতগুলো ঘর সম্পূর্ণভাবে বিধ্বস্ত হয়েছে। কতগুলো ‘আংশিক বিধস্ত’ হয়েছে। যেগুলো সম্পূর্ণ ক্ষতিগ্রস্ত আমরা তাদের ঘর তৈরি করে দেব। আর ক্ষতিগ্রস্তদেরও আমরা ঘর পুনর্নির্মাণে সহায়তা করব।”

শেখ হাসিনা বলেন, ‘এই প্রাকৃতিক দুর্যোগে যারা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে আমরা তাদের পাশে আছি। প্রাথমিকভাবে যা যা প্রয়োজন তা করে যাচ্ছি এবং যাদের ঘরবাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে আমি তাদের এটুকু বলতে চাই, আপনাদের চিন্তার কোনো কারণ নেই। প্রত্যেকেই যাতে নতুন ঘর পান, সেই ব্যবস্থা ইনশাআল্লাহ করে দেব এবং সেভাবেই ইতোমধ্যে আমরা প্রস্তুতি নিয়েছি। প্রত্যেক এলাকা থেকেই আমরা তথ্য সংগ্রহ করেছি এবং সে অনুযায়ী এই সহায়তা পাঠাব।’

আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের পঞ্চম পর্বের দ্বিতীয় ধাপে এদিন ১৮ হাজার ৫৬৬টি গৃহহীন ও ভূমিহীন পরিবারকে বাড়ি হস্তান্তরের পাশাপাশি ২৬ জেলার সব উপজেলাসহ আরও ৭০টি উপজেলাকে ভূমিহীন ও গৃহহীনমুক্ত ঘোষণা করেন প্রধানমন্ত্রী।

নতুন ভূমিহীন ও গৃহহীনমুক্ত জেলা ও উপজেলা নিয়ে দেশে মোট জেলার সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৫৮টি এবং উপজেলা হয়েছে ৪৬৪টি।

এর আগে, প্রধানমন্ত্রী সারা দেশে আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের প্রথম ধাপে ৬৩ হাজার ৯৯৯টি, দ্বিতীয় ধাপে ৫৩ হাজার ৩৩০টি, তৃতীয় ধাপে ৫৯ হাজার ১৩৩টি এবং চতুর্থ ধাপে ৩৯ হাজার ৩৬৫টি বাড়ি বিতরণ করেন।

প্রকল্পের আওতায় ভূমিহীন ও গৃহহীন প্রতিটি পরিবারকে দুই দশমিক ৫ শতাংশ জমির মালিকানা দিয়ে একটি আধা-পাকা বাড়ি দেওয়া হচ্ছে, যা স্বামী-স্ত্রী উভয়েরই নামে হবে। প্রতিটি বাড়িতে দুটি বেডরুম, একটি রান্নাঘর, একটি টয়লেট এবং বারান্দা রয়েছে।

প্রকল্পের বিবরণ অনুযায়ী, আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের প্রথম, দ্বিতীয়, তৃতীয়, চতুর্থ এবং পঞ্চম পর্যায়ের প্রথম ধাপে মোট ২ লাখ ৬৬ হাজার ১২টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে পুনর্বাসন করা হয়েছে।

বাসস/সালমান/

২১ জুন দিল্লি যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশ: ১৫ জুন ২০২৪, ১২:২৫ এএম
আপডেট: ১৫ জুন ২০২৪, ১২:২৫ এএম
২১ জুন দিল্লি যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ছবি: সংগৃহীত

পূর্বনির্ধারিত দ্বিপক্ষীয় সফরের অংশ হিসেবে আগামী ২১ জুন দি‌ল্লি যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সর্বশেষ গত ৮ জুন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির শপথ অনুষ্ঠানে যোগ দিতে দেশটিতে গিয়েছিলেন তিনি। 

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, প্রধানমন্ত্রীর এ সফর পূর্বনির্ধারিত ছিল। সফরকালে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বৈঠক করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

এ সফরকালে বেশ কয়েকটি চুক্তি ও সমঝোতা স্মারক সই হতে পারে বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্রসচিব মাসুদ বিন মোমেন। এ ছাড়া বিভিন্ন অমীমাংসিত বিষয় নিয়ে দুই দেশ কাজ করছে বলেও জানান তিনি। 

গত ৯ জুন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির শপথ অনুষ্ঠানে যোগ দিতে ৮ জুন দেশটিতে সফরে যান শেখ হাসিনা। বিশ্বের অন্য অতিথিদের সঙ্গে আমন্ত্রিত হয়ে সেখানে অংশ নেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। শপথ অনুষ্ঠানে যোগদান শেষে ১০ জুন দেশে ফেরেন তিনি।

ঈদযাত্রা সড়কে অতিরিক্ত ভাড়া-যানজটে ভোগান্তি, রেলে স্বস্তি

প্রকাশ: ১৪ জুন ২০২৪, ১১:১৪ পিএম
আপডেট: ১৪ জুন ২০২৪, ১১:১৮ পিএম
সড়কে অতিরিক্ত ভাড়া-যানজটে ভোগান্তি, রেলে স্বস্তি
জীবনের ঝুঁকি নিয়ে ঈদে ঘরমুখো মানুষ। শুক্রবার ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের এলেঙ্গায় দেখা যায় তীব্র যানজট। ছবি: খবরের কাগজ

পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষে ঘরমুখী যাত্রার তৃতীয় দিনে শুক্রবার ঢাকা থেকে দেশের নানা প্রান্তে সড়কপথে যাতায়াতে দিনভর নানা রকম ভোগান্তি পোহাতে হয় যাত্রীদের। অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের অভিযোগ পাওয়া গেছে। তার সঙ্গে যানজট ও পরিবহনসংকট যুক্ত হয়ে দুর্ভোগ বাড়িয়ে দেয় আরও। তবে রেলযাত্রা ছিল স্বস্তিদায়ক। আগের দুই দিনের মতো শুক্রবার রেলে শিডিউল বিপর্যয় ঘটেনি। 

বাসে অতিরিক্ত ভাড়া, বাস-সংকট 

শুক্রবার সকালে মহাখালী আন্তজেলা বাস টার্মিনাল পরিদর্শনে গিয়ে জানা যায়, রাজশাহী, রংপুর ও ময়মনসিংহ বিভাগগামী অধিকাংশ বাসের টিকিট নেই। অনেক যাত্রী টিকিট কাটতে এসে ফিরে গেছেন। চাঁপাইনবাবগঞ্জগামী একতা পরিবহন ছাড়াও এনা পরিবহন, শাহ ফতেহ আলী পরিবহন, ন্যাশনাল ট্রাভেলস,দেশ ট্রাভেলসসহ বিভিন্ন পরিবহনের কাউন্টারে কোনো টিকিট না পাওয়ার কথা জানান যাত্রীরা। টাঙ্গাইলগামী যাত্রী ফয়সাল শুক্রবার বেলা ১১টার দিকে বলেন, ‘আমি ৩ ঘণ্টা ধরে টার্মিনালে বসে আছি। নিরালার কাউন্টার ম্যানেজার বলেছেন, বাস না এলে টিকিট দেওয়া হবে না। মহাখালী থেকে টাঙ্গাইল পর্যন্ত ভাড়া ২৫০ টাকা। ভাড়া বাড়ানোর জন্য বাস-সংকটকে একটা অজুহাত হিসেবে দাঁড় করাতে চান তারা।’

গাবতলী বাস টার্মিনালের অধিকাংশ কাউন্টারের ব্যবস্থাপক জানান,  চাঁদরাত পর্যন্ত সব টিকিটের বুকিং এরই মধ্যে শেষ। ফলে অনেক যাত্রী চাইলেও নির্ধারিত বা পছন্দের পরিবহনে ভ্রমণ করতে পারবেন না। সোহাগ পরিবহনের কাউন্টার ম্যানেজার নয়ন, হানিফ পরিবহনের কাউন্টার ম্যানেজার আল-আমিন জানান, টিকিটের বাইরে অতিরিক্ত যাত্রী পরিবহন করা হবে না এবার। পরিস্থিতি বুঝে কর্তৃপক্ষ দু-একটি বাস ঈদের বহরে যুক্ত করতে পারে কাল রবিবার।

গাবতলীতে দিগন্ত পরিবহনের কাউন্টার কর্মী জয়নুল জানান, প্রতিদিন গড়ে ১০-১২টি বাস গাবতলী ছেড়ে গেলেও শুক্রবার ছেড়েছে ৭টি। মহাসড়কে বিভিন্ন পয়েন্টে যানজট থাকায় বাসগুলো ঢাকায় সময়মতো ফিরে আসতে পারছে না।  

গাবতলী ও মহাখালী আন্তজেলা বাস টার্মিনালে অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের বিষয়ে জানতে চাইলে বিআরটিএ চেয়ারম্যান  নূর মোহাম্মদ মজুমদার বলেন, ‘সরকার নির্ধারিত যে ভাড়া, তার চেয়ে বেশি ভাড়া নেওয়ার সুযোগ নেই। আমাদের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট পুরোটা সময় টার্মিনালে রয়েছেন। অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করা হলে পরিবহন কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

মহাসড়কে যানজট, খোলা ট্রাকে দূরপাল্লার যাত্রী

ঈদযাত্রার তৃতীয় দিনে গতকাল শুক্রবার ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে থেমে থেমে যানজট ছিল দিনভর। সাসেক প্রকল্পের আওতায় ঢাকা-সিলেট মহাসড়ক চার লেনে উন্নীতকরণের কাজ চলমান থাকায় কাঁচপুর থেকে আড়াইহাজারের পুরিন্দাবাজার পর্যন্ত প্রায় ২১ কিলোমিটার এলাকায় যানজট ছিল গতকাল। মহাসড়কের এই অংশে নানা স্থানে সিএনজি-অটোরিকশা স্ট্যান্ড, বাস স্টপেজ আর বাজার থাকায় যানজট প্রবল আকার ধারণ করে। যানজটের পাশাপাশি অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের ঘটনায় যাত্রীদের বেশ ভোগান্তি হয়েছে। নারায়ণগঞ্জের সাইনবোর্ড এলাকার একটি কাউন্টারে কিশোরগঞ্জগামী যাত্রী হাসিব মাহমুদ বলেন, ‘কিশোরগঞ্জের নিয়মিত ভাড়া ২০০ থেকে ২৫০ টাকা। অথচ আজ নেওয়া হচ্ছে ৭০০ টাকা।’ 

যাত্রীদের হয়রানি ও বাড়তি ভাড়া আদায়ের অভিযোগ পেয়েছেন নারায়ণগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মৌসুমি বাইন হীরা। পরিবহন মালিক ও কর্মীদের বিরুদ্ধে ভাড়া আদায়ের অভিযোগ প্রমাণিত হলে জেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমাণ আদালত জরিমানা আদায় করছেন বলে জানান তিনি। 

শুক্রবার দুপুরে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের আমিনবাজার থেকে বলিয়ারপুর পর্যন্ত পাঁচ কিলোমিটার, শ্রীপুর-থেকে ইপিজেড দেড় কিলোমিটার ও বাড়ইপাড়া থেকে চন্দ্রা পর্যন্ত আড়াই কিলোমিটারসহ ১৭ কিলোমিটার সড়কে যানবাহনের ধীরগতি ছিল। এসব পয়েন্ট পাড়ি দিতে আধা ঘণ্টা থেকে ১ ঘণ্টা সময় বেশি লেগেছে বলে দাবি করেছেন যাত্রীরা।

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের চান্দিনায় শ্রমিকরা দেড় ঘণ্টা রাস্তা অবরোধ করে রাখলে যানজট তীব্র আকার ধারণ করে। এই ঘটনার জের ছিল অনেকক্ষণ পর্যন্ত। কাউন্টারগুলোতে বাস দেরি করে আসায় অসহনীয় ভ্যাপসা গরমে নারী, শিশু ও বৃদ্ধ যাত্রীদের ভোগান্তি পোহাতে হয়েছে। মেঘনা সেতু টোলপ্লাজায় পশু ও পণ্যবাহী যানবাহনের বাড়তি চাপ দেখা গেছে। হাইওয়ে পুলিশের শিমরাইল পুলিশ ক্যাম্পের পরিদর্শক শরফুদ্দিন আহাম্মদ জানান, ‘ঈদযাত্রায় মানুষের চাপ বেশি থাকায় গাড়ির চাপ ছিল কয়েক গুণ। তবে যানজট যেন তীব্র আকার ধারণ না করে, সে জন্য আমরা বেশ সতর্ক ছিলাম।’ 

ঢাকা-রংপুর মহাসড়কের কালিহাতী উপ‌জেলার পুংলী এলাকায় গতকাল ভোরে মালবাহী এক‌টি ট্রাক উল্টে যায়। এলেঙ্গা হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মীর মো. সাজেদুর রহমান জানান, এতে পুংলী এলাকা থেকে টাঙ্গাইলের আশিকপুর বাইপাস পর্যন্ত এলাকাজু‌ড়ে যানজটের সৃ‌ষ্টি হয়। প‌রে সকাল সা‌ড়ে ৮টার দি‌কে মালামালসহ ট্রাক‌টি স‌রি‌য়ে নেওয়া হয়। দুর্ঘটনার কার‌ণে সা‌র্ভিস লেন দি‌য়ে প‌রিবহন চলাচল ক‌রে। এদিকে উত্তরবঙ্গ থেকে ছে‌ড়ে আসা ঢাকাগামী প‌রিবহন‌গুলো বঙ্গবন্ধু সেতু পূর্ব এলাকা হ‌য়ে ভূঞাপুর-টাঙ্গাইল সড়‌ক দি‌য়ে চলাচল করায় দিনভর যানজট লেগেই ছিল। বঙ্গবন্ধু সেতু পূর্ব-ভূঞ‌াপুর-টাঙ্গাইল সড়‌কের ভূঞাপুর উপ‌জেলার গো‌বিন্দাসীর বাগবাড়ী থেকে কা‌লিহাতীর নারা‌ন্দিয়া পর্যন্ত ১০ কি‌লো‌মিটার এলাকায় যানজ‌টের সৃ‌ষ্টি হ‌য়।

এদিন এ মহাসড়কে বেশ কিছু ট্রাকে দূরপাল্লার যাত্রী পরিবহন করতে দেখা গেছে। ঢাকার একটি গার্মেন্টসের কর্মী মারুফা বলেন, ‘ঈদে বাড়ি ফিরতে হবে। পরিবারের সঙ্গে ঈদ করতে হবে। তাই জীবনের ঝুঁকি নিয়ে বাড়ি যাচ্ছি।’ আরেকটি ট্রাকে বগুড়া যাচ্ছিলেন জিহাদ হাসান নামে এক যাত্রী। তিনি বলেন, ‘গাবতলী বাস কাউন্টারে গিয়ে দেখি কোনো টিকিট নেই। খবর নিয়ে জানলাম, ৬০০ টাকায় এই ট্রাকে বগুড়ায় যেতে পারব। ঝুঁকি হলেও কী  আর করব! আমার তো বাড়ি যেতেই হবে।’ 

এলেঙ্গা হাইও‌য়ে পু‌লি‌শ ফাঁড়ির ইনচার্জ মীর মো. সাজেদুর রহমান জানান, গতকাল ঢাকা-রংপুর মহাসড়কে তেমন কোনো যানজট না থাকলেও প‌রিবহ‌নের চাপ ছিল অনেক। মহাসড়ক ও আঞ্চ‌লিক সড়‌কে যান চলাচল স্বাভা‌বিক রাখ‌তে পর্যাপ্তসংখ‌্যক আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বা‌হিন‌ীর সদস‌্য মোতা‌য়েন করা হয়েছে। পাশাপা‌শি হাইও‌য়ে পু‌লি‌শের সদস‌্যরাও দায়িত্ব পালন করছেন। 

সিরাজগঞ্জের হাটিকুমরুল হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এম ওয়াদুদ জানান, উত্তরবঙ্গগামী মহাসড়কে যানবাহনের চাপ থাকলেও শুক্রবার কোনো যানজট ছিল না। ঈদযাত্রা  যানজটমুক্ত ও মহাসড়ক নিরাপদ রাখতে জেলা পুলিশ, জেলা ট্রাফিক বিভাগ ও হাইওয়ে পুলিশের পক্ষ থেকে প্রায় সাড়ে ৮০০ পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

এদিকে দক্ষিণবঙ্গের প্রবেশপথ বঙ্গবন্ধু এক্সপ্রেসওয়েতেও শুক্রবার যানজট লেগে যায়। পদ্মা সেতুর টোলপ্লাজা থেকে বঙ্গবন্ধু এক্সপ্রেসওয়ের ছনবাড়ী পর্যন্ত প্রায় আট কিলোমিটারজুড়ে যানজট ছিল। মাওয়ায় ট্রাফিক ইন্সপেক্টর জিয়াউল ইসলাম বলেন, ‘শুক্রবার ভোর থেকে স্বাভাবিক সময়ের চেয়ে যানবাহনের চাপ বেড়ে যায়। পদ্মা সেতুর টোলপ্লাজায় যানবাহনগুলোকে টোল দেওয়ার জন্য কিছুটা সময় অপেক্ষা করতে হচ্ছে। এ কারণে সেতু এলাকায় যানবাহনের কিছুটা ধীরগতি রয়েছে।’ 

শুক্রবার দুপুরে আওয়ামী লীগের সভাপতির ধানমন্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ে ব্রিফিংয়ে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘এবার চাপ আছে, যানজট নেই। সড়কে চাপ হবে। তবে রাস্তার জন্য যানজট হয়নি। এবার আমরা আরও সর্তক হয়েছি।’ 

রেলযাত্রায় তৃতীয় দিনে স্বস্তি 

ঈদুল আজহার ছুটিতে রেলযাত্রার তৃতীয় দিনে গতকাল শুক্রবার ঢাকার কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনে স্বস্তি ফিরেছে। আগের দু’দিনের মতো শিডিউল বিপর্যয় ঘটেনি। উত্তরবঙ্গ, পূর্বাঞ্চল আর দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ট্রেনগুলো যথাসময়ে ঢাকা ছেড়ে গেছে। আগের দু’দিন কমলাপুর ও বিমানবন্দর রেলওয়ে স্টেশনে যাত্রীদের চাপ থাকলেও শুক্রবার সকাল ১০টার পরে তেমন চাপ আর দেখা যায়নি।  

ঢাকা রেলওয়ে স্টেশনের ব্যবস্থাপক মোহাম্মদ মাসুদ সারওয়ার বলেন, সকাল থেকে এখন পর্যন্ত প্রতিটি ট্রেন নির্ধারিত সময় ছেড়ে গেছে। এখন আর প্রথম দিনের মতো ট্রেনে কোনো বিলম্ব নেই। নির্ধারিত সময়ের পাঁচ মিনিট পর সকাল সোয়া ৯টায় ঢাকা রেলওয়ে স্টেশন ছেড়ে গেছে রংপুর এক্সপ্রেস। এছাড়া সকাল সাড়ে ১০টার কিশোরগঞ্জ এক্সপ্রেস ১০টা ৪০ মিনিটে স্টেশন ছেড়ে যায়।

টিকিট কালোবাজারি আটক

শুক্রবার ট্রেনের ৫০০ টিকিটসহ ১২ কালোবাজারিকে আটক করেছে র‌্যাব। কমলাপুর রেলওয়ের স্টেশনের প্ল্যাটফর্মে এক সংবাদ সম্মেলনে র‍্যাব-৩ এর অধিনায়ক (সিও) লে. কর্নেল মো. ফিরোজ কবীর বলেন, ঢাকার কমলাপুর ও আশপাশের এলাকাসহ দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে অভিযুক্তদের আটক করা হয়েছে। এই কালোবাজারি চক্রের কাছ থেকে আগামী ১০ দিনের অরিজিনাল টিকিট পাওয়া গেছে। এগুলোর হার্ডকপি ও সফট কপি রয়েছে। এর মধ্যে দিনাজপুরের একতা এক্সপ্রেসের টিকিট ৩ হাজার টাকা করে বিক্রি করছে।

প্রতিবেদনে তথ্য দিয়ে সহযোগিতা করেছেন খবরের কাগজের মুন্সীগঞ্জ, নারায়ণগঞ্জ, টাঙ্গাইল, সিরাজগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি।

সংসদ ভবনে ঈদ জামাত সকাল ৮টায়

প্রকাশ: ১৪ জুন ২০২৪, ০৯:১২ পিএম
আপডেট: ১৪ জুন ২০২৪, ০৯:১২ পিএম
সংসদ ভবনে ঈদ জামাত সকাল ৮টায়
খবরের কাগজ গ্রাফিকস

জাতীয় সংসদের দক্ষিণ প্লাজায় (টানেলের নিচে) পবিত্র ঈদুল আজহার নামাজের জামাত সকাল ৮টায় অনুষ্ঠিত হবে। 

জাতীয় সংসদের চিফ হুইপ, হুইপ, মন্ত্রিপরিষদের সদস্য, সংসদ-সদস্য ও সংসদ সচিবালয়ের কর্মচারীসহ মুসল্লিরা এই জামাতে অংশ নেবেন।

এই জামাত সবার জন্য উন্মুক্ত থাকবে। আগ্রহী মুসল্লিদের অংশগ্রহণের জন্য সংসদ সচিবালয়ের পক্ষ থেকে অনুরোধ জানানো হয়েছে। খবর বাসসের।

টুঙ্গিপাড়ায় বঙ্গবন্ধুর প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিবের

প্রকাশ: ১৪ জুন ২০২৪, ০৯:০৪ পিএম
আপডেট: ১৪ জুন ২০২৪, ০৯:০৪ পিএম
টুঙ্গিপাড়ায় বঙ্গবন্ধুর প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিবের
ছবি : বাসস

গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সমাধিতে গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করেছেন প্রধানমন্ত্রীর নবনিযুক্ত প্রেস সচিব ও সিনিয়র সাংবাদিক মো. নাঈমুল ইসলাম খান।

শুক্রবার (১৪ জুন) বিকেলে তিনি বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।

এ সময় বঙ্গবন্ধুসহ ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টের শহিদদের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশের অব্যাহত উন্নয়ন ও অগ্রগতি কামনা করে তিনি মুনাজাত করেন।

পুষ্পস্তবক অর্পণের পর তিনি স্বাধীন বাংলাদেশের মহান স্থপতির স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানিয়ে কিছুক্ষণ নীরবে দাঁড়িয়ে থাকেন। প্রধানমন্ত্রীর উপ-প্রেস সচিব কে এম সাখাওয়াত মুন ও এম এম ইমরুল কায়েস এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে গত ৮ জুন জাতির পিতার প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব মো. নাঈমুল ইসলাম খান। তিনি রাজধানীর ধানমন্ডিতে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘরের সামনে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। খবর বাসসের।

 

সুইজারল্যান্ড ও ইইউর সঙ্গে বাংলাদেশের বিমান চলাচল চুক্তি স্বাক্ষর

প্রকাশ: ১৪ জুন ২০২৪, ০৮:৫৪ পিএম
আপডেট: ১৪ জুন ২০২৪, ০৮:৫৯ পিএম
সুইজারল্যান্ড ও ইইউর সঙ্গে বাংলাদেশের বিমান চলাচল চুক্তি স্বাক্ষর
ছবি : সংগৃহীত

সুইজারল্যান্ডসহ ইউরোপীয় ইউনিয়নভুক্ত দেশগুলোর সঙ্গে বাংলাদেশের বিমান চলাচলের জন্য সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে চুক্তি স্বাক্ষর করেছে বাংলাদেশ। গত ৪ জুন সুইজারল্যান্ডের বার্নে বাংলাদেশ সরকার ও সুইস ফেডারেল কাউন্সিলের মধ্যে একটি দ্বিপক্ষীয় বিমান চলাচল চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়।

শুক্রবার (১৪ জুন) বাংলাদেশ বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ বেবিচক-এর উপ-পরিচালক (জনসংযোগ) মোহাম্মদ সোহেল কামরুজ্জামান এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানিয়েছেন।

এই চুক্তির ফলে ইউরোপের আরও একটি নতুন দেশের সঙ্গে বাংলাদেশের সরাসরি বিমান চলাচলের দ্বার উন্মোচিত হলো। চুক্তির অধীনে দুই দেশের মনোনীত বিমানসংস্থাগুলো সপ্তাহে ৭টি যাত্রী ও ৭টি কার্গো ফ্লাইট পরিচালনা করতে পারবে। চুক্তিতে মনোনীত দুই দেশের বিমানসংস্থাগুলো যাতে নিজেদের ও তৃতীয় কোনো দেশের বিমানসংস্থার সঙ্গে কোড শেয়ারের মাধ্যমে দুই দেশের মধ্যে ফ্লাইট পরিচালনা করতে পারে, সে সুযোগ রাখা হয়েছে। 

সুইজারল্যান্ডের পক্ষ থেকে সুইস এয়ার ইন্টারন্যাশনাল ও এডেলউইস এয়ার এজি এবং বাংলাদেশ পক্ষ থেকে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স, ইউ এস বাংলা এয়ার ও নভোএয়ারকে দুই দেশের মধ্যে পরিষেবা প্রদানের জন্য মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে। বাংলাদেশ বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান এয়ার ভাইস মার্শাল মো. মফিদুর রহমান এবং সুইস ফেডারেল অফিস অফ সিভিল এভিয়েশনের (FOCA) ডিরেক্টর জেনারেল ক্রিশ্চিয়ান হেগনার এ চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন। 

গত ৭ জুন বেলজিয়ামের ব্রাসেলসে বাংলাদেশ ও ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের (ইইউ) মধ্যে একটি দ্বিপক্ষীয় বিমান চলাচল চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। এর আগে ২০০৯ সালের ১৬ সেপ্টেম্বর দুপক্ষের মধ্যে প্রথম চুক্তিটি অনুস্বাক্ষরিত হয়েছিল। এরপর দুই পক্ষের নিজেদের মধ্যকার প্রক্রিয়া সম্পন্ন শেষে চুক্তিটি চূড়ান্তভাবে স্বাক্ষরিত হলো। এ ধরনের চুক্তি ইইউ হরাইজন্টাল চুক্তি নামে বহুল পরিচিত। চুক্তিটির মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে ইইউভুক্ত দেশগুলোর সঙ্গে বিমান চলাচল পরিচালনার ক্ষেত্রে একই ধরনের বিধি-বিধান প্রতিপালন নিশ্চিত করা। ইইউ ও বাংলাদেশের পক্ষে চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন ইউরোপিয়ান কমিশনের ডিরেক্টরেট জেনারেল ফর মবিলিটি অ্যান্ড ট্রান্সপোর্ট-এর ডিরেক্টর ফিলিপ কর্নেলিস এবং বাংলাদেশ বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান এয়ার ভাইস মার্শাল মো. মফিদুর রহমান।

চুক্তি দুটি স্বাক্ষরের জন্য বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের সচিব মোকাম্মেল হোসেনের নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধি দল ২ জুন সুইজারল্যান্ড ও পরে ৬ জুন বেলজিয়ামের ব্রাসেলস সফর করে। চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠান দুটিতে যথাক্রমে সুইজারল্যান্ডস্থ বাংলাদেশ মিশনের ডেপুটি পার্মানেন্ট রিপ্রেজেনটেটিভ অ্যান্ড চার্জ ডি অ্যাফেয়ার্স সঞ্চিতা হক ও বেলজিয়ামের ব্রাসেল্সে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাস ও ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের বাংলাদেশ মিশনের রাষ্ট্রদূত ও হেড অফ দি মিশন মাহবুব হাসান সালেহ উপস্থিত ছিলেন।

তিথি/এমএ/