ঢাকা ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, রোববার, ২৬ মে ২০২৪

করোনায় আক্রান্ত অর্থমন্ত্রী

প্রকাশ: ১৫ মে ২০২৪, ০৯:০২ পিএম
করোনায় আক্রান্ত অর্থমন্ত্রী
অর্থমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী

অর্থমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। ফলে তিনি সচিবালয়ে আসছেন না। তবে ডিজিটাল মাধ্যমে বিভিন্ন প্রোগ্রামে যুক্ত হচ্ছেন। 

বুধবার (১৫ মে) সরকারি ক্রয়সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি এবং অর্থনৈতিক বিষয়কসংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন অর্থমন্ত্রী। তিনি জুমে এই দুই বৈঠকে যুক্ত হন। এ দুটি মন্ত্রিসভা কমিটির বাকি সদস্যরা সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ সভাকক্ষে উপস্থিত হয়ে বৈঠকে অংশ নেন।

সরকারি ক্রয়সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠকে অংশ নেওয়া এক সদস্য জানান, অর্থমন্ত্রীর সভাপতিত্বে বৈঠক হয়েছে। তবে তিনি সরাসরি বৈঠকে উপস্থিত হননি। কারণ তিনি করোনা পজিটিভ। এ জন্য জুমে বৈঠকে অংশ নেন।

তিনি আরও জানান, করোনা আক্রান্ত হলেও অর্থমন্ত্রীর শারীরিক অবস্থার অবনতি হয়নি। তাকে দেখলে সুস্থ-স্বাভাবিকই লাগছে। মনে হয়েছে, তিনি ভালোই আছেন। কিন্তু করোনা পজিটিভ হওয়ার কারণে তিনি সচিবালয়ে আসছেন না। 

দেশের ১৮তম অর্থমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন দিনাজপুর-৪ আসনের সংসদ সদস্য আবুল হাসান মাহমুদ আলী। চলতি বছরের ১১ জানুয়ারি বঙ্গভবনে তিনি শপথ নেন।

ঘূর্ণিঝড় রেমাল : বঙ্গবন্ধু টানেল সাময়িক বন্ধ ঘোষণা

প্রকাশ: ২৬ মে ২০২৪, ০৬:১২ পিএম
ঘূর্ণিঝড় রেমাল : বঙ্গবন্ধু টানেল সাময়িক বন্ধ ঘোষণা
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান টানেল

বাংলাদেশ সেতু কর্তৃপক্ষের নির্দেশে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান টানেল ১২ ঘণ্টা সাময়িক বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত হয়েছে। ঘূর্ণিঝড় রেমালের সম্ভাব্য আঘাতে ক্ষয়ক্ষতির ঝুঁকি এড়াতে বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

রবিবার (২৬ মে) সন্ধ্যা ৬টা থেকে সোমবার ভোর ৬টা পর্যন্ত টানেল দিয়ে গাড়ি চলাচল সম্পূর্ণ বন্ধ থাকবে বলে জানিয়েছেন বঙ্গবন্ধু টানেলের নির্বাহী প্রকৌশলী (টোল, ট্রাফিক ও ইএমই) মো. নজরুল ইসলাম।

সচিবালয়ে অনুষ্ঠিত আন্তমন্ত্রণালয়ের বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত হয়েছে। বৈঠক শেষে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী মো. মহিববুর রহমান এ তথ্য জানিয়েছেন।

রবিবার বিকেল সাড়ে ৫টায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান টানেল কর্তৃপক্ষের সহকারী প্রকৌশলী তানভীর রিফা খবরের কাগজকে বলেন, ‘উভয়প্রান্তের চারটি ফ্লাড গেট বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। তবে সাগরে পানির উচ্চতা সর্বোচ্চ সাড়ে ৭ মিটার পর্যন্ত টানেলে পানি প্রবেশ করবে না। এর বেশি হলে টানেলের ভেতরে পানি প্রবেশের ঝুঁকি থাকবে। কিন্তু ফ্লাড গেট বন্ধ থাকলে পানি টানেলের ভেতরে প্রবেশ করতে পারবে না। টানেলের সুরক্ষায় নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহের ব্যবস্থা করা হয়েছে এবং সার্ভিলেন্স টিম প্রস্তুত রাখা হয়েছে।’

আবদুস সাত্তার/সালমান/

মোংলা-পায়রার কাছাকাছি রেমাল

প্রকাশ: ২৬ মে ২০২৪, ০৫:০৬ পিএম
মোংলা-পায়রার কাছাকাছি রেমাল
ছবি : খবরের কাগজ

মোংলা ও পায়রা সমুদ্র বন্দরের কাছাকাছি চলে এসেছে ঘূর্ণিঝড় রেমাল। এটি সন্ধ্যা ৬টা থেকে পরবর্তী তিন থেকে চার ঘণ্টার মধ্যে খেপুপাড়া উপকূল অতিক্রম করতে পারে।

রবিবার (২৬ মে) আবহাওয়ার বিশেষ বিজ্ঞপ্তিতে (ক্রমিক-১২) এসব তথ্য জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

আবহওয়াবিদ ওমর ফারুক স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, উত্তর-পশ্চিম বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থানরত প্রবল ঘূর্ণিঝড় রেমাল উত্তর দিকে অগ্রসর হয়ে একই এলাকায় অবস্থান করছে। এটি রবিবার (২৬ মে) দুপুর ১২টায় চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দর থেকে ৩৩৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে, কক্সবাজার সমুদ্রবন্দর থেকে ৩১৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে, মোংলা সমুদ্র বন্দর থেকে ২২০ কিলোমিটার দক্ষিণে এবং পায়রা সমুদ্রবন্দর থেকে ২০০ কিলোমিটার দক্ষিণে অবস্থান করছিল।

বাংলাদেশের উপকূলীয় এলাকায় প্রবল ঘূর্ণিঝড়ের অগ্রভাগের প্রভাবে বৃষ্টিসহ দমকা/ঝড়ো হাওয়া অব্যাহত রয়েছে। এটি আরও উত্তর দিকে অগ্রসর হয়ে সন্ধ্যা ৬টা থেকে পরবর্তী ৩-৪ ঘন্টার মধ্যে মোংলার পাশ দিয়ে সাগর আইল্যান্ড (পশ্চিমবঙ্গ)-খেপুপাড়া উপকূল অতিক্রম করতে পারে। 

ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের নিকটবর্তী সাগর বিক্ষুদ্ধ রয়েছে উল্লেখ করে বলা হয়, প্রবল ঘূর্ণিঝড়টির কেন্দ্র অতিক্রমের পর এর নিম্নভাগ অতিক্রম অব্যাহত থাকবে। প্রবল ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের ৬৪ কিলোমিটারের মধ্যে বাতাসের একটানা সর্বোচ্চ গতিবেগ ঘণ্টায় ৯০ কিলোমিটার, যা দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়ার আকারে ১২০ কিলোমিটার পর্যন্ত বৃদ্ধি পাচ্ছে। 

সমুদ্র বন্দর ও জেলায় সংকেত নিয়ে জানানো হয়, পায়রা ও মোংলা সমুদ্রবন্দর এবং উপকূলীয় জেলা খুলনা, সাতক্ষীরা, বাগেরহাট, পিরোজপুর, ঝালকাঠি, বরগুনা, বরিশাল, ভোলা, পটুয়াখালী এবং তাদের অদূরবর্তী দ্বীপ ও চরসমূহ ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেতের আওতায় থাকবে। 

কক্সবাজার ও চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দর এবং উপকূলীয় জেলা চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, ফেনী, নোয়াখালী, লক্ষ্মীপুর, চাঁদপুর এবং তাদের অদূরবর্তী দ্বীপ ও চরসমূহ ৯ নম্বর মহাবিপদ সংকেতের আওতায় থাকবে।

জলোচ্ছ্বাস ও পাহাড়ি এলাকায় ভূমিধসের বিষয়ে বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, প্রবল ঘূর্ণিঝড়টির অগ্রবর্তী অংশ ও বায়ুচাপ পার্থক্যের আধিক্যের প্রভাবে উপকূলীয় জেলা খুলনা, সাতক্ষীরা, বাগেরহাট, পিরোজপুর, ঝালকাঠি, বরগুনা, বরিশাল, ভোলা, পটুয়াখালী, ফেনী, নোয়াখালী, লক্ষ্মীপুর, চাঁদপুর, চট্টগ্রাম, কক্সবাজার এবং তাদের অদূরবর্তী দ্বীপ ও চরসমূহের নিম্নাঞ্চল স্বাভাবিক জোয়ারের চেয়ে ৮-১২ ফুট অধিক উচ্চতার বায়ু তাড়িত জলোচ্ছ্বাসে প্লাবিত হতে পারে। 

প্রবল ঘূর্ণিঝড়টির প্রভাবে রাজশাহী, রংপুর, ময়মনসিংহ, ঢাকা, খুলনা, বরিশাল, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগে দমকা/ঝড়ো হাওয়াসহ ভারী থেকে অতি ভারী বর্ষণ হতে পারে।

অতি ভারী বর্ষণের প্রভাবে কক্সবাজার, বান্দরবান, রাঙ্গামাটি, খাগড়াছড়ি ও চট্টগ্রামের পাহাড়ি অঞ্চলের কোথাও কোথাও ভূমিধস হতে পারে।

কবির/অমিয়/

সাংবাদিক যাতে হেনস্তার শিকার না হয় সে ব্যাপারে আমরা সতর্ক : কাদের

প্রকাশ: ২৬ মে ২০২৪, ০৩:৪৯ পিএম
সাংবাদিক যাতে হেনস্তার শিকার না হয় সে ব্যাপারে আমরা সতর্ক : কাদের
ডিআরইউয়ের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখছেন ওবায়দুল কাদের

ডিজিটাল অ্যাক্টের নামে কোনো সাংবাদিক যাতে করে হয়রানির শিকার না হয় সে ব্যাপারে সরকার সতর্ক আছে এবং থাকবে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক  এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

রবিবার (২৬ মে) ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির (ডিআরইউ) প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে তিনি একথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘কোনো সাংবাদিক যাতে হেনস্তার শিকার না হয় সে ব্যাপারে আমরা সতর্ক আছি। আর সাংবাদিকতার নামে অপসাংবাদিকতা ও ভুয়া লোক যাতে মহান এ পেশাকে অসম্মান করতে না পারে সে জন্য সাংবাদিকদেরও সতর্ক থাকতে হবে।’

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘সাংবাদিকতার নামে সাংবাদিকের লেখা নেই, পড়া নেই, সংবাদ বোঝে না, এর ধারে কাছেও নেই। এমন অনেককেই দেখি সরকারি অফিসে গিয়ে বসে থাকে। এরা সত্যিকারের সাংবাদিক নয়। এই ভুয়া সাংবাদিকের ব্যাপারে সতর্ক থাকতে হবে।’

আওয়ামী লীগ সরকার সমালোচনার বিরোধী নয় জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘সমালোচনা শুদ্ধ করে। সমালোচনা আমরাও করি, তবে তা গঠনমূলক হওয়া প্রয়োজন।’

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি সৈয়দ শুকুর আলী শুভ ও সঞ্চালনা করেন সাধারণ সম্পাদক মহিউদ্দিন। অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন জাতীয় পার্টির (জাপা) চেয়ারম্যান জি এম কাদের, আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম প্রমুখ।

বাসস/সালমান/

প্রধানমন্ত্রী রেমাল মোকাবিলা কার্যক্রম মনিটরিং করছেন: দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা প্রতিমন্ত্রী

প্রকাশ: ২৬ মে ২০২৪, ০৩:৪২ পিএম
প্রধানমন্ত্রী রেমাল মোকাবিলা কার্যক্রম মনিটরিং করছেন: দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা প্রতিমন্ত্রী
দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী মো. মুহিববুর রহমান

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঘূর্ণিঝড় রেমাল মোকাবিলায় যাবতীয় কার্যক্রম সার্বক্ষণিক মনিটরিং করছেন এবং প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দিচ্ছেন বলে জানিয়েছেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী মো. মুহিববুর রহমান। 

রবিবার (২৬ মে) দুপুরে সচিবালয়ে মন্ত্রণালয়ের সম্মেলনকক্ষে ঘূর্ণিঝড় রেমাল মোকাবেলায় আন্তঃমন্ত্রণালয় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা সমন্বয় কমিটির সভা শেষে সাংবাদিক সম্মেলনে এ কথা বলেন তিনি।

এ সময় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ সচিব কামরুল হাসানসহ অন্যান্য ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

মুহিববুর রহমান বলেন, ঘূর্ণিঝড় রেমাল আজ সন্ধ্যা নাগাদ আঘাত হানতে পারে। তবে মূল ঝড় আজ মধ্যরাতে বাংলাদেশ অতিক্রম করতে পারে। ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রে বাতাসের গতিবেগ ১২০ কিলোমিটার হতে পারে। তবে তা আরও বেড়ে ১৩০ কিলোমিটার পর্যন্ত হতে পারে।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ঘূর্ণিঝড়ের সময় সাগরের পানির উচ্চতা স্বাভাবিকের চেয়ে ১০ থেকে ১২ ফুট পর্যন্ত বেড়ে যেতে পারে। জোয়ারের সময় তা আরও বাড়তে পারে।

ঘূর্ণিঝড় রেমালের প্রভাবে চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, খুলনা, বাগেরহাট ও ভোলাসহ উপকূলবর্তী জেলাসহ সারাদেশে ব্যাপক বৃষ্টিপাত হতে পারে। সারাদেশে ৩০০ মিলিমিটার পর্যন্ত বৃষ্টিপাত হওয়ার সম্ভবনা রয়েছে। ফলে দেশের পাহাড়ি এলাকায় ভূমিধস হতে পারে বলে জানান প্রতিমন্ত্রী। 

তিনি আরও বলেন, ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে যে কোনো ধরনের পরিস্থিতি মোকাবেলার জন্য সকল মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ছুটি বাতিল করা হয়েছে। একইসঙ্গে বঙ্গবন্ধু টানেল আজ সন্ধ্যা থেকে পরের দিন সকাল পর্যন্ত বন্ধ থাকবে। সকল ধরনের লঞ্চ চলাচলও বন্ধ থাকবে।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ঘূর্ণিঝড় রেমাল মোকাবেলায় সরকার সার্বিকভাবে প্রস্তুত রয়েছে। ইতোমধ্যে আশ্রয় কেন্দ্রগুলোতে প্রয়োজনীয় খাবার পৌঁছে গেছে। আমরা নির্ধারিত সময়ের মধ্যে ঝুঁকিপূর্ণ এলাকার সব লোককে নিরাপদ স্থানে সরিয়ে আনতে সক্ষম হব।

দুর্যোগ মোকাবেলার প্রস্তুতি হিসেবে তিনি বলেন, আমরা সামরিক ও বেসামরিক সকল যানবাহনকে নিরাপদ স্থানে সরিয়ে আনতে সক্ষম হয়েছি। আমাদের মেডিকেল টিমগুলো প্রস্তুত রয়েছে। সামরিক বাহিনী ও নৌবাহিনীসহ প্রয়োজনীয় সকল বাহিনীকে প্রস্তুত রাখা হয়েছে।

ঘূর্ণিঝড়ের সময় সৃষ্ট ভূমিধস থেকে লোকজনকে রক্ষা করতে ফায়ার সার্ভিসকে প্রস্তুত রাখা হয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, আমরা অতীতের অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে আরও সক্ষমতার সঙ্গে এই ঘূর্ণিঝড়ের যে কোনো ধরণের ধ্বংসলীলা মোকাবেলা করার জন্য প্রস্তুত রয়েছি। আমরা আশা করি, সকলের ঐক্যবদ্ধ প্রয়াসে এই ঝড়কে ভালভাবে মোকাবেলা করতে পারব।

অতিদ্রুত আশ্রয়কেন্দ্রে যাওয়ার জন্য উপকূলবর্তী এলাকার লোকজনের প্রতি আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, আপনারা এখনই নিরাপদ স্থানে আশ্রয় নিন। ৭ থেকে ৮ হাজার আশ্রয়কেন্দ্র প্রস্তুত রয়েছে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোকেও প্রস্তুত রাখা হয়েছে। খাবারসহ প্রয়োজনীয় সকল প্রস্তুতি রাখা হয়েছে।

এক প্রশ্নের জবাবে প্রতিমন্ত্রী বলেন, আমরা ইতোমধ্যে ৮ লাখের বেশি মানুষকে নিরাপদ স্থানে সরিয়ে আনতে সক্ষম হয়েছি। যেহেতু ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত ঘোষনা করা হয়েছে, সেহেতু আমাদের লক্ষ্য হলো সকল মানুষকে আশ্রয়কেন্দ্রে সরিয়ে আনা।

অপর এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আশ্রয়কেন্দ্রের পাশাপাশি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোকেও প্রস্তুত রাখা হয়েছে। ঘূর্ণিঝড়ের সময় শিক্ষা কার্যক্রম বন্ধ থাকলে আশ্রয় সংক্রান্ত কার্যক্রম চালু থাকবে। এ ছাড়াও সিটি কর্পোরেশন ও পৌরসভার সব কর্মকর্তা-কর্মচারীর ছুটি বাতিল করা হয়েছে।

তিনি বলেন, ঘূর্ণিঝড় কবলিত এলাকায় যাতে আনঅ্যাফেকটেড এলাকার সরকারি কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা কাজ করতে পারে, সেজন্যও প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

এর আগে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রীর সভাপতিত্বে আন্তঃমন্ত্রণালয় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা সমন্বয় কমিটির সভা অনুষ্ঠিত হয়। সূত্র: বাসস

ইসরাত চৈতী/অমিয়/  

ডেঙ্গুর প্রাদুর্ভাব গত বছরের চেয়ে বেশি: নিপসম

প্রকাশ: ২৬ মে ২০২৪, ০২:২২ পিএম
ডেঙ্গুর প্রাদুর্ভাব গত বছরের চেয়ে বেশি: নিপসম
ছবি : খবরের কাগজ

দেশে ডেঙ্গুর প্রাদুর্ভাব ইতোমধ্যেই গত বছরের তুলনায় ছাড়িয়ে গেছে বলে জানিয়েছে জাতীয় প্রতিষেধক ও সামাজিক চিকিৎসা প্রতিষ্ঠান (নিপসম)। 

নিপসম জানায়, গত বছর প্রথম পাঁচ মাসের তুলনায় এ বছর জানুয়ারি থেকে গতকাল (২৫ মে) পর্যন্ত আক্রান্ত ও মৃত্যু দুটোই বেশি।

রবিবার (২৬ মে) রাজধানীর মহাখালীতে নিপসমের সাইন্টিফিক সেমিনারে এ তথ্য উপস্থাপন করা হয়। 

সেমিনারের সভাপতিত্ব করেন নিপসমের পরিচালক অধ্যাপক ডা. সামিউল ইসলাম সাদী।

অমিয়/