ঢাকা ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, শনিবার, ২৫ মে ২০২৪

আরও ৫২ নেতাকে বহিষ্কার করল বিএনপি

প্রকাশ: ১৫ মে ২০২৪, ০৬:১৮ পিএম
আরও ৫২ নেতাকে বহিষ্কার করল বিএনপি
খবরের কাগজ গ্রাফিকস

দলীয় নির্দেশ অমান্য করে তৃতীয় ধাপের উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে অংশ নেওয়ায় এবার ১১২ উপজেলায় ৫২ জন নেতাকে বহিষ্কার করেছে বিএনপি। 

বুধবার (১৫ মে) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়েছে দলটি। 

বহিষ্কৃতদের মধ্যে চেয়ারম্যান পদে ১৭ জন, ভাইস চেয়ারম্যান (পুরুষ) ২৬ এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান রয়েছেন ৯ জন। 

বিএনপির ৯ সাংগঠনিক বিভাগের মধ্যে রংপুরে বহিষ্কৃত ১২ জনের মধ্যে চেয়ারম্যান প্রার্থী ৭, ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী ৩, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী ২ জন। রাজশাহী বিভাগে ৪ জনের মধ্যে চেয়ারম্যান প্রার্থী ৩ জন, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান একজন। বরিশাল বিভাগে ৫ জনের মধ্যে চেয়ারম্যান প্রার্থী একজন, ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী ৩ জন, মহিলা চেয়ারম্যান প্রার্থী একজন। ঢাকা বিভাগে ৪ জনের মধ্যে ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী ৩ জন, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী একজন। 

ময়মনসিংহ বিভাগে ৯ জনের মধ্যে চেয়ারম্যান প্রার্থী একজন, ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী ৭ জন, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী একজন। সিলেট বিভাগে ৭ জনের মধ্যে চেয়ারম্যান প্রার্থী ৩ জন, ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী ৩ জন, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী একজন। চট্টগ্রামে মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী একজন। কুমিল্লা বিভাগে ৬ জনের মধ্যে চেয়ারম্যান প্রার্থী ১ জন, ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী ৪ জন, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী একজন। খুলনা বিভাগে ৪ জনের মধ্যে চেয়ারম্যান প্রার্থী একজন, ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী ৩ জন।

দলের সিদ্ধান্ত না মানায় তাদেরকে গঠনতন্ত্র অনুযায়ী প্রাথমিক সদস্যসহ সব পর্যায়ের পদ থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। 

সবুজ/সালমান/

রাইসির মৃত্যুতে শোক বইয়ে আলতাফ হোসেন চৌধুরীর স্বাক্ষর

প্রকাশ: ২৫ মে ২০২৪, ১২:৪৩ এএম
রাইসির মৃত্যুতে শোক বইয়ে আলতাফ হোসেন চৌধুরীর স্বাক্ষর
ছবি : সংগৃহীত

বিমান দুর্ঘটনায় ইরানের প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসির মৃত্যুতে ঢাকায় ইরানের দূতাবাসে শোক বইতে স্বাক্ষর করেছেন সাবেক স্বরাষ্ট্র ও বাণিজ্যমন্ত্রী এবং বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আলতাফ হোসেন চৌধুরী।

শুক্রবার (২৪ মে) সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে ঢাকায় ইরানি দূতাবাসে গিয়ে তিনি শোক বইয়ে স্বাক্ষর করেন।

এরপর ঢাকায় নিযুক্ত ইসলামিক রিপাবলিক অব ইরানের রাষ্ট্রদূত মনসুর চাভোশি এর সঙ্গে কথা বলেন অবসরপ্রাপ্ত এয়ার ভাইস মার্শাল আলতাফ হোসেন চৌধুরী। নিজের ও দলের পক্ষ থেকে ইরানের সরকার ও জনগণের প্রতি সমবেদনা জানান বিএনপির এই ভাইস চেয়ারম্যান। 

সবুজ/এমএ/

দুর্নীতিমুক্ত দেশ গঠনে প্রকৌশলীদের এগিয়ে আসতে হবে: জামায়াতে আমীর

প্রকাশ: ২৪ মে ২০২৪, ১১:১১ পিএম
দুর্নীতিমুক্ত দেশ গঠনে প্রকৌশলীদের এগিয়ে আসতে হবে: জামায়াতে আমীর
ছবি : সংগৃহীত

দুর্নীতিমুক্ত ও সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গঠনে প্রকৌশলী সমাজকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছেন বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর আমির ডা. শফিকুর রহমান। তিনি বলেন, দেশে নীতি নির্ধারক হিসাবে যারা আছেন, তাদের অধিকাংশের নৈতিক শিক্ষার চরম অভাবের কারণে হাজার হাজার কোটি টাকার দুর্নীতি হচ্ছে। কোটি কোটি টাকার বাজেট পাস হলেও তা যথাযথভাবে বাস্তাবায়ন হচ্ছে না। উন্নয়ন বাজেটের অর্থ তারা লুটপাট করে বিদেশে বাড়ি গাড়ির মালিক হচ্ছে। আর এই আত্মসাতে সহযোগী হচ্ছে কতিপয় বিপথগামী প্রকৌশলী যারা নৈতিকভাবে অসৎ।

শুক্রবার (২৪ মে) রাজধানীর একটি মিলনায়তনে ফোরাম অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স বাংলাদেশ এর দ্বিবার্ষিক কাউন্সিল ও জাতীয় সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

জামায়াতে আমীর বলেন, দুর্নীতি দেশের মানুষের সামাজিক ও রাষ্ট্রীয় জীবনকে বিষিয়ে তুলছে। পদে পদে দুর্নীতি থাকায় দেশের মানুষ উন্নয়ের সুফল পাচ্ছে না। উন্নতির পথে বাধা হয়ে দাঁড়াচ্ছে দুর্নীতি। অবৈধ সম্পদের মোহই মানুষকে চরমমাত্রায় নৈতিকভাবে পতন ঘটিয়েছে।

তিনি বলেন, নীতি-নৈতিকতা এবং ধর্মীয় অনুশাসন না মানার কারণে দেশে চক্রবৃদ্ধি হারে বেড়ে গেছে দুর্নীতি। এই অবস্থায় প্রচলিত আইনের পাশাপাশি ধর্মীয় অনুশাসন মেনে চলার জন্য আহ্বান জানান তিনি।

সম্মেলনে বিশেষ অথিতির বক্তব্যে ফোরামের কেন্দ্রীয় উপদেষ্টা মাওলানা রফিকুল ইসলাম খান বলেন, ঘুষ ছাড়া অফিস-আদালতে কাজ করা কঠিন হয়ে পড়ছে। ইউনিয়ন পরিষদের দারোয়ান থেকে শুরু করে সচিবালয় পর্যন্ত দুর্নীতি চরমমাত্রায় পৌঁছেছে। কিছু ভোগবাদী লোক জনগণের চিন্তা না করে নিজেদের ভোগ-বিলাসী জীবনের কারণে দেশ শত শত বছর পিছিয়ে যাচ্ছে। উন্নয়নের মুখরোচক গল্প মানুষকে শুনালেও অর্থনীতিতে অন্তসারশূন্য দেশ আজ। সব ধরনের আর্থিক প্রতিষ্ঠান, শেয়ারবাজার, হলমার্ক দুর্নীতি, কেন্দ্রীয় ব্যাংকের রিজার্ভ চুরি দেশকে আজ অর্থনৈতিকভাবে পঙ্গু করে দিয়েছে। তিনি আলোকিত সমাজ গঠনে প্রকৌশলীদের সততা ও দক্ষতার সঙ্গে ভূমিকা রাখার জন্য আহ্বান জানান।

কাউন্সিল অধিবেশনে ২০২৪-২৬ কার্যকালের জন্য সভাপতি হিসেবে মনোনীত হয়েছেন প্রকৌশলী মো. গিয়াস উদ্দীন এবং সাধারণ সম্পাদক হিসাবে মনোনীত হন প্রকৌশলী জয়নুল আবেদীন। 

আয়োজক সংগঠনের সভাপতি গিয়াস উদ্দীনের সভাপতিত্বে ও সেক্রেটারি জয়নুল আবেদীনের সঞ্চালনায় আরও উপস্থিত ছিলেন ফোরাম অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি আবদুস সাত্তার শাহ, মির্জা মিজানুর রহমান, তৈয়বুর রহমান জাহাঙ্গীর, মোশাররফ হোসেন, সহ-সম্পাদক আব্দুল বাতেন, হোসাইন বিন মানসুর, আবুল হাসেম, আবু মেহেদী, মোস্তফা কামাল, সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুস সামাদ সরদারসহ দেশের শতাধিক দায়িত্বশীল প্রকৌশলীবৃন্দ।

শফিক/এমএ/

আজিজ-বেনজীরের দুর্নীতির দায় এড়াতে পারে না সরকার: নূর

প্রকাশ: ২৪ মে ২০২৪, ০৯:৫৯ পিএম
আজিজ-বেনজীরের দুর্নীতির দায় এড়াতে পারে না সরকার: নূর
ছবি : সংগৃহীত

সাবেক সেনাপ্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদের ওপর মার্কিন নিষেধাজ্ঞা ও সাবেক আইজিপি বেনজীর আহমেদের দুর্নীতি দায় আওয়ামী লীগ সরকার এড়াতে পারে না বলে মন্তব্য করেছেন গণ অধিকার পরিষদের সভাপতি নুরুল হক নূর। 

তিনি বলেন, আজিজ ও বেনজীরের মতো আরও অনেক দুর্নীতিবাজ ও দুর্বৃত্ত আছে, হোক সে ব্যবসায়ী বা আমলা। সবাইকে গ্রেপ্তার করতে হবে। রাজনৈতিক আন্দোলনের পাশাপাশি দুর্নীতি-লুটপাটের বিরুদ্ধে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে। 

শুক্রবার (২৪ মে) জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে ‘বাজার কারসাজি, দুর্নীতি, লুটপাট ও অর্থ পাচারের সঙ্গে জড়িতদের গ্রেপ্তারের দাবিতে’ গণ অধিকার পরিষদ ঢাকা মহানগর উত্তর-দক্ষিণ আয়োজিত বিক্ষোভ সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন। সমাবেশ শেষে প্রেসক্লাব থেকে মিছিল শুরু হয়ে বিজয়নগর পানির ট্যাংকির মোড়ে গিয়ে শেষ হয়।

নুরুল হক বলেন, দুর্নীতি ও গণতন্ত্রকে বাধাগ্রস্ত করায় আজিজ আহমেদকে যুক্তরাষ্ট্র নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে। জেনারেল আজিজ তার প্রভাব খাটিয়ে সন্ত্রাসী ভাইদের রাষ্ট্রপতির ক্ষমায় মুক্ত করেছেন। আজিজের মতো সন্ত্রাসী পরিবারের একজন সদস্যকে সেনাপ্রধান কে বানিয়েছে? সাবেক পুলিশপ্রধান বেনজীরের হাজার কোটি টাকার সম্পদ। বেনজীরকে ডিএমপি কমিশনার থেকে র‍্যাবপ্রধান, পুলিশপ্রধান কে বানিয়েছে? 

নূর বলেন, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী কয়েক ঘণ্টায় এমপি আনার হত্যার তথ্য দিলেন, অথচ এক যুগ পার হলেও সাংবাদিক সাগর-রুনী হত্যার তথ্য দিতে পারেন না। তার মানে সরকার হত্যাকারীদের রক্ষা করছে।

গণ অধিকার পরিষদ ঢাকা মহানগর উত্তরের সভাপতি মিজানুর রহমানের সভাপতিত্বে ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সাধারণ সম্পাদক নুরুল করিম শাকিলের সঞ্চালনায় আরও বক্তব্য দেন গণ অধিকার পরিষদের সাধারণ সম্পাদক মো. রাশেদ খান, উচ্চতর পরিষদের সদস্য আবু হানিফ, শাকিল উজ্জামান, অ্যাডভোকেট নুরে এরশাদ সিদ্দিকী, সহসভাপতি বিপ্লব কুমার পোদ্দার, সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাসান আল মামুন, মানবাধিকারবিষয়ক সম্পাদক খালিদ হাসান, আইন সম্পাদক শওকত হোসেন, প্রচার সম্পাদক শহিদুল ইসলাম, মহানগর দক্ষিণের সভাপতি নাজিম উদ্দীন প্রমুখ।

শফিক/এমএ/

রিজার্ভ নিয়ে লুকোচুরি বরদাশত করা হবে না: ইসলামী আন্দোলন মহাসচিব

প্রকাশ: ২৪ মে ২০২৪, ০৯:৩৭ পিএম
রিজার্ভ নিয়ে লুকোচুরি বরদাশত করা হবে না:  ইসলামী আন্দোলন মহাসচিব
ছবি: সংগৃহীত

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মহাসচিব অধ্যক্ষ হাফেজ মাওলানা ইউনুছ আহমাদ বলেছেন, ‘রিজার্ভ নিয়ে সরকারের নানা মহলে নানা বক্তব্য আসছে। অপর দিকে ভারতের গণমাধ্যমে রিজার্ভ চুরির রিপোর্ট প্রকাশিত হয়েছে। রিজার্ভ নিয়ে আসলে কী ঘটেছে তা জাতির সামনে স্পষ্ট করতে হবে। একই সঙ্গে তিনি রিজার্ভ নিয়ে কোনো প্রকার লুকোচুরি বরদাশত করা হবে না বলেও সরকারকে কঠিন হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন।

শুক্রবার (২৪ মে) ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ ঢাকা মহানগর দক্ষিণের এক সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

ইউনুছ আহমাদ আরও বলেন, ‘ফিলিস্তিনের সমস্যা শুধু ফিলিস্তিনের নয়। মসজিদুল আকসা টোটাল মুসলিম উম্মাহর সম্পদ। উম্মাহর সম্পদ রক্ষা করার জন্য ওআইসিসহ মুসলিম বিশ্বকে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে। আগামী ৩১ মে রাজধানী ঢাকায় স্বাধীন ফিলিস্তিন রাষ্ট্র গঠনের দাবিতে গণমিছিল সফল করার জন্য শান্তিকামী জনতার প্রতি আহ্বান জানান তিনি।’
নগর দক্ষিণ সভাপতি মাওলানা মুহাম্মদ ইমতিয়াজ আলমের সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভায় উপস্থিত ছিলেন, আলহাজ আলতাফ হোসাইন, আনোয়ার হোসেন, আবদুল আউয়াল, ডা. শহীদুল ইসলাম, কে এম শরীয়াতুল্লাহ, হাফেজ মাওলানা মুহাম্মদ মাকসুদুর রহমান, ফজলুল হক মৃধা, নজরুল ইসলাম খোকন, মাওলানা নজরুল ইসলাম, এম এম শোয়াইব প্রমুখ।

সবুজ/এমএ/
 

 

নজরুলের লেখনী নির্যাতিত মানুষকে প্রেরণা জোগাবে: মির্জা ফখরুল

প্রকাশ: ২৪ মে ২০২৪, ০৯:২৫ পিএম
নজরুলের লেখনী নির্যাতিত মানুষকে প্রেরণা জোগাবে: মির্জা ফখরুল
বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। ফাইল ছবি

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, “জাগরণের কবি কাজী নজরুল উপমহাদেশের স্বাধীনতার প্রথম বলিষ্ঠ কণ্ঠস্বর। তিনি আমাদের জাতীয় কবি। তার কবিতা ও গান আমাদের মুক্তিসংগ্রাম এবং পরবর্তী সময়ে সব স্বৈরাচারবিরোধী সংগ্রামে সাহস জুগিয়েছে। তার ‘চল্ চল্ চল্’ গানটি আমাদের জাতীয় রণসংগীত হিসেবে পেয়ে আমরা গর্বিত। আমি বিশ্বাস করি, প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ ঔপনিবেশিক শৃঙ্খল ছিন্ন করে দেশ থেকে নিপীড়ন-নির্যাতন ও বৈষম্য নির্মূল করতে তার লেখনীর আবেদন চিরদিন নির্যাতিত মানুষকে প্রেরণা জোগাবে। পাশাপাশি সংগীতে তার অবদান চিরকালীন ও চিরস্থায়ী হয়ে থাকবে।”

শুক্রবার (২৪ মে) এক বিবৃতিতে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের ১২৫তম জন্মবার্ষিকী (২৫ মে) উপলক্ষে তার প্রতি শ্রদ্ধা এবং আত্মার মাগফিরাত কামনা করে এসব কথা বলেন মির্জা ফখরুল ইসলাম।

তিনি আরও বলেন, কাজী নজরুল ইসলাম বাংলা সাহিত্যের এক অবিসংবাদিত কিংবদন্তি। তিনি একাধারে সাহিত্যিক, কবি, সংগীতজ্ঞ, সুরকার, সাংবাদিক, সম্পাদক, রাজনীতিবিদ এবং সৈনিক। তিনি অন্যায় ও অবিচারের বিরুদ্ধে সর্বদা ছিলেন উচ্চকণ্ঠ। তার লেখা স্বাধীনতা, মানবতা ও বিপ্লবের কবিতা পাঠে মানুষের হৃদয়ে স্পন্দন জাগে, রক্তে শিহরণ তোলে।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, পারিবারিক জীবনের নানা অভিঘাতের মধ্যেও তিনি নিরলসভাবে সাহিত্যচর্চা করেছেন। তার ক্ষুরধার লেখনীতে অন্যায় ও অবিচারের বিরুদ্ধে প্রতিবাদের মন্ত্র উচ্চারিত হয়। তিনি দেশের স্বাধীনতা ও মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য ঔপনিবেশিক শাসক গোষ্ঠীর অন্যায়ের বিরুদ্ধে কলমকে অস্ত্র হিসেবে ব্যবহার করে কারাগারে নির্যাতন সহ্য করতেও দ্বিধা করেননি। তার কবিতা ও গানে ভালোবাসা, মানবতা ও সাম্যের বাণী বিধৃত হয়েছে। তার কবিতার মূল উপজীব্য ছিল, মানুষের ওপর মানুষের অত্যাচার, সামাজিক অনাচার ও শোষণের বিরুদ্ধে সোচ্চার প্রতিবাদ।