ঢাকা ৬ আষাঢ় ১৪৩১, বৃহস্পতিবার, ২০ জুন ২০২৪

তাইওয়ান দখলের ‘সক্ষমতা পরীক্ষা’ চীনের

প্রকাশ: ২৫ মে ২০২৪, ০৮:৪০ এএম
আপডেট: ২৫ মে ২০২৪, ০৮:৪০ এএম
তাইওয়ান দখলের ‘সক্ষমতা পরীক্ষা’ চীনের
ছবি: সংগৃহীত

তাইওয়ানের চারপাশে যে মহড়া চলছে তার মধ্য দিয়ে আদতে ‘ক্ষমতা দখলের’ সক্ষমতা পরীক্ষা করছে চীন। মহড়াটি সেভাবেই সাজানো হয়েছে বলে জানিয়েছে চীনের সামরিক বাহিনী। গতকাল শুক্রবার চীনের পিপলস লিবারেশন আর্মি (পিএলএ) দ্বিতীয় দিনের মতো সামরিক মহড়া চালায় স্বশাসিত ভূখণ্ডটিকে ঘিরে। 

বার্তা সংস্থা রয়টার্স চীনের টেলিভিশন সিসিটিভির বরাত দিয়ে জানায়, ওই স্থানে ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণের মহড়াও করেছে চীন। দুই দিনের অনুশীলনের অংশ হিসেবে গতকাল লাইভ মিসাইল ও বোমারু বিমান বহনকারী ফাইটার জেটও পাঠায় তারা।

এর আগে বেইজিং বলেছিল, তাইওয়ানের নতুন প্রেসিডেন্ট লাই চিঙ-তেকে শাস্তি দিতেই তারা ওই মহড়া শুরু করেছে। লাই চিঙ-তে শপথ নেওয়ার পরপরই সামরিক মহড়া শুরু করে চীন। এ ছাড়া নতুন নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট লাইকে ‘বিচ্ছিন্নতাবাদী’ও আখ্যা দেয় তারা।
স্বশাসিত তাইওয়ানকে নিজেদের অঞ্চল বলে দাবি করে বেইজিং। তবে তাইওয়ান বরাবরই নিজেদের আলাদা বলে দাবি করে এসেছে।
প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নেওয়ার পর চীনের কড়া সমালোচনা করেছিলেন লাই। তিনি তাইওয়ানকে হুমকি না দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছিলেন বেইজিংয়ের প্রতি। পাশাপাশি প্রণালির দুই দিক ‘একে অপরের অধীনস্থ নয়’ বলেও দাবি করেন।

তাইওয়ানের আশপাশে যে মহড়াটি হচ্ছে, চীনের পিপলস লিবারেশন আর্মির ইস্টার্ন থিয়েটার কমান্ড সেটির নাম দিয়েছে ‘জয়েন্ট সোর্ড-২০২৪ এ’। এক বিবৃতিতে তারা জানায়, এই মহড়ার উদ্দেশ্য ‘সম্মিলিতভাবে ক্ষমতা দখল, যৌথ আক্রমণ চালানো এবং গুরুত্বপূর্ণ এলাকা দখলের সক্ষমতা পরীক্ষা করা।’

তাইওয়ানের একজন জ্যেষ্ঠ নিরাপত্তা কর্মকর্তা বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে জানান, বাসি চ্যানেলের পূর্বপ্রান্তের কাছে বেশ কয়েকটি চীনা বোমারু বিমান পশ্চিমের দ্বীপাঞ্চলের ‘সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ’ কীভাবে নেওয়া যায়, সেটির মহড়া করেছে।

অন্যদিকে চীনের কোস্ট গার্ড বলেছে, তারা শুক্রবার তাইওয়ানের পূর্ব জলসীমায় ‘আইন প্রয়োগসংক্রান্ত মহড়া’ করেছে। সে মহড়ায় যাচাইকরণ, শনাক্তকরণ, সতর্কতা ও প্রতিহত করার মতো বিষয়গুলোতে গুরুত্বারোপ করা হয়েছে। সূত্র: সিএনএন, রয়টার্স 

তামিলনাড়ুতে বিষাক্ত মদপানে ৩৭ জনের মৃত্যু

প্রকাশ: ২০ জুন ২০২৪, ০২:২৫ পিএম
আপডেট: ২০ জুন ২০২৪, ০২:২৯ পিএম
তামিলনাড়ুতে বিষাক্ত মদপানে ৩৭ জনের মৃত্যু
ছবি : সংগৃহীত

ভারতের তামিলনাড়ুতে বিষাক্ত মদপানে এখনও পর্যন্ত ৩৭ জন মারা গেছেন। এ ঘটনায় কাল্লাকুরিচি, ভিলুপুরাম, সালেম ও পুদুচেরির হাসপাতালে ১০০ জনের বেশি চিকিৎসাধীন।

বৃহস্পতিবার (২০ জুন) টাইমস অব ইন্ডিয়ার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানা গেছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, বেআইনিভাবে মদ বিক্রির অভিযোগে কে গোবিন্দরাজ ওরফে কান্নুকুট্টি (৪৯) নামে এক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার এবং ২০০ লিটারের বেশি মদ জব্দ করেছে পুলিশ। ভিলুপুরামের এক ফরেনসিক ল্যাবরেটরিতে পরীক্ষা করা নমুনায় বিষাক্ত মিথানলের উপস্থিতি পাওয়া গেছে।

মঙ্গলবার (১৮ জুন) রাতে কল্লাকুরিচি শহর ও পার্শ্ববর্তী এলাকার কয়েক ডজন লোক করুণাপুরমে অবৈধভাবে বিক্রি করা বিষাক্ত মদপান করেন। বাড়িতে পৌঁছে তাদের মধ্যে বেশিভাগই মাথা ঘোরা, মাথাব্যথা, বমি, বমি বমি ভাব, পেটে ব্যথা এবং চোখে জ্বালা-পোড়ার কথা জানান। পরে পরিবারের সদস্যরা তাদের শহরের একটি বেসরকারি হাসপাতাল এবং কল্লাকুড়ি সরকারি মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল নিয়ে যান। 

তামিলনাড়ুর মুখ্যমন্ত্রী এম কে স্ট্যালিন এ ঘটনায় শোক প্রকাশ এবং আধিকারিকদের সঙ্গে একটি পর্যালোচনা বৈঠক করেছেন। 

এ সময় তিনি কর্মকর্তাদের মিথানলের উৎস খুঁজে বের করার নির্দেশ দিয়েছেন। 

নিতদের পরিবারকে তামিলনাড়ু সরকারের পক্ষ থেকে ১০ লাখ এবং আহতদের ৫০ হাজার রুপি করে আর্থিক সহায়তা দেওয়া হয়েছে।

এ ঘটনায় ছেলে হারানো এক নারী ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম এনডিটিভিকে বলেছেন, ‘আমার ছেলে জানায়, মদপান করায় তার গুরুতর পেটে ব্যথা এবং চোখ খুলতে অসুবিধা হচ্ছে। হাসপাতালে নিয়ে গেলে প্রথমে তাকে মাতাল বলে ভর্তি করতে অস্বীকৃতি জানায়। রাজ্য সরকারের উচিত সব মদের দোকান বন্ধ করে দেওয়া।’ 

আরেকজন মা বলেন, ‘আমার ছেলের পেটে প্রচণ্ড ব্যথা। সে দেখতে ও শুনতেও পায় না। এটা যেনো কারও সঙ্গে না হয়। মদ বিক্রি বন্ধ করুন।’

একজন সিনিয়র পুলিশ কর্মকর্তা এনডিটিভিকে বলেছেন, এক সন্দেহভাজন অবৈধ মদ বিক্রেতাসহ তিনজনকে আটক করা হয়েছে। ঠিক কি পান করায় এমন ঘটনা ঘটেছে তা তদন্ত করা হচ্ছে। 

বৃহস্পতিবার তামিলনাড়ু বিধানসভা এ ঘটনায় দুই মিনিট নীরবতা পালন করেছে। সূত্র: টাইমস অব ইন্ডিয়া ও এনডিটিভি

পপি/

যুক্তরাজ্যের নির্বাচন: জরিপে এগিয়ে লেবার, অভিবাসন চাপে সুনাক

প্রকাশ: ২০ জুন ২০২৪, ১২:৩৩ পিএম
আপডেট: ২০ জুন ২০২৪, ১২:৩৩ পিএম
যুক্তরাজ্যের নির্বাচন: জরিপে এগিয়ে লেবার, অভিবাসন চাপে সুনাক

যুক্তরাজ্যের নির্বাচনের আর বেশি সময় বাকি নেই। সব ঠিক থাকলে আগামী ৪ জুলাই দেশটিতে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। মতামত জরিপের তথ্য বলছে, দেশটির বিরোধী দল লেবার পার্টি নির্বাচনি দৌড়ে এগিয়ে রয়েছে। অন্যদিকে অভিবাসন ইস্যুতে চাপের মুখে আছেন ঋষি সুনাকের ক্ষমতাসীন দল কনজারভেটিভ পার্টি।

নির্বাচনকে সামনে রেখে প্রচারে ব্যস্ত দেশটির রাজনৈতিক দলের ও স্বতন্ত্র প্রার্থীরা। প্রায় প্রতিটি ইস্যু নিয়েই হচ্ছে আলোচনা-সমালোচনা। যুক্তরাজ্য ৬৫০টি নির্বাচনি এলাকায় বিভক্ত। প্রত্যেকটি এলাকা থেকে স্থানীয় বাসিন্দারা একজন করে আইনপ্রণেতা নির্বাচিত করবেন।

ব্রিটিশ গণমাধ্যমগুলোর প্রতিবেদন বলছে, নির্বাচনের এ আবহে ঋষি সুনাকের জন্য চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছে দুটি বিষয়। এর একটি ক্রমাগত বাড়তে থাকা অভিবাসীর সংখ্যা। আর দ্বিতীয়টি হলো- মূল্যস্ফীতি।

যুক্তরাজ্যে মূল্যস্ফীতি গতকাল বুধবার সকালে দুই পয়েন্ট কমেছে। পলিটিকোর ইউরোপীয় সংস্করণের বরাতে এ তথ্য জানা গেছে। বিষয়টি ঋষি সুনাককে নির্বাচনি মৌসুমে কিছুটা স্বস্তি দেবে বলেই প্রতিবেদনে উল্লেখ করেছে পলিটিকো।

তবে একই কথা অভিবাসন ইস্যুর ক্ষেত্রে জোরালোভাবে খাটছে না। কারণ যুক্তরাজ্যে অভিবাসী নৌকা এসে হাজির হওয়ার সংখ্যা ১৯ মাসের মধ্যে সর্বোচ্চ পর্যায়ে গিয়ে ঠেকেছে। গত মঙ্গলবারও ছোট ছোট নৌকা দিয়ে আট শরও বেশি অভিবাসন প্রত্যাশী ব্রিটেনে পা রেখেছেন। একক দিনের হিসাবে এ সংখ্যা ২০২২ সালের নভেম্বরের পর সর্বোচ্চ বলেই জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স। এর আগে ২০২২ সালের নভেম্বরে এক দিনে ৯৪৭ জন অভিবাসী এসে হাজির হয়েছিলেন।

রয়টার্সের প্রতিবেদন আরও বলছে, এত অভিবাসী আসার বিষয়টি ৪ জুলাইয়ের নির্বাচনের আগে সুনাকের ওপর চাপ তৈরি করবে। যুক্তরাজ্যের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তথ্যউপাত্ত বলছে, চলতি বছরে এ পর্যন্ত ১২ হাজার ৩০০-এর বেশি অভিবাসী এসেছেন যুক্তরাজ্যে।

এই অভিবাসী ইস্যু প্রভাব ফেলেছে মতামত জরিপে। সুনাকের কনজারভেটিভ পার্টি মতামত জরিপে লেবার পার্টির চেয়ে অনেকটাই পিছিয়ে রয়েছে। অনেক ভোটারের জন্যই অভিবাসনের ইস্যুটি অনেক বড় একটি উদ্বেগের বিষয়। তারা চান এ ধরনের নৌকা আসা বন্ধ হোক। এ ছাড়াও সুনাক ক্ষমতায় আসার আগে যে কয়টি বড় মাপের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন, তার একটি ছিল- অবৈধ অভিবাসন কমানো। সেটি তিনি এখনো পূরণ করতে পারেননি।

সুনাকের অভিবাসন নীতির একটি পরিকল্পনা হলো- অভিবাসন প্রত্যাশীদের যুক্তরাজ্য থেকে রোয়ান্ডায় পাঠিয়ে দেওয়া এবং ফ্রান্স থেকে ছোট নৌকায় করে অভিবাসী আসার ঢল ঠেকানো। তবে এবার নির্ধারিত সময়ের অনেক আগে নির্বাচন করার ঘোষণা দিয়েছেন সুনাক। ফলে ওই পরিকল্পনা এখনো বাস্তবায়িত হয়নি।

মতামত জরিপে বিরোধী দল লেবার পার্টি প্রায় ২০ পয়েন্ট এগিয়ে রয়েছে। দলটি বলছে, ক্ষমতায় আসতে পারলে রোয়ান্ডা নীতি বাতিল করবে তারা। এর বদলে তারা পুলিশ, দেশীয় গোয়েন্দা বিভাগ ও আইনজীবীদের নিয়ে ‘বর্ডার সিকিউরিটি কমান্ড’ গড়ে তুলবে। এই বর্ডার সিকিউরিটি কমান্ড মানবপাচার রোধে আন্তর্জাতিক বিভিন্ন সংস্থার সঙ্গে কাজ করবে। সূত্র: পলিটিকো, বিবিসি, রয়টার্স

দিল্লিতে গরমে বেড়েছে বিদ্যুতের চাহিদা

প্রকাশ: ২০ জুন ২০২৪, ০৯:৩৬ এএম
আপডেট: ২০ জুন ২০২৪, ০৯:৩৬ এএম
দিল্লিতে গরমে বেড়েছে বিদ্যুতের চাহিদা
ছবি : সংগৃহীত

ভারতের রাজধানী দিল্লিতে দীর্ঘ গরমে বেড়েছে বিদ্যুতের চাহিদা। চলতি সপ্তাহে এ সংক্রান্ত নতুন রেকর্ড হয়েছে। ভারতীয় গণমাধ্যমের প্রতিবেদন বলেছে, এ সপ্তাহে দিল্লিতে বিদ্যুতের চাহিদা ছিল ৮ হাজার ৬৪৭ মেগাওয়াট।

কয়েক সপ্তাহ ধরেই দিল্লি ও উত্তর ভারতের বিভিন্ন অংশে তাপমাত্রার পারদ ৪৪ থেকে ৪৫ ডিগ্রি সেলসিয়াসের ঘরে ছিল। এতে করে বেড়ে গেছে এসিসহ নানা ধরনের শীতলীকরণ যন্ত্রের ব্যবহার, যা আখেরে গিয়ে প্রভাব ফেলেছে বিদ্যুতে। চাহিদা অনুযায়ী সরবরাহ না থাকায় দেখা দিয়েছে বিদ্যুৎ বিভ্রাটও।

বিদ্যুৎ খরচে দিল্লি রেকর্ড করেছে গত মঙ্গলবার। সেদিন ওই শহরে সর্বোচ্চ বিদ্যুৎ খরচ হয়েছে ৮৯ হাজার মেগাওয়াট। বিবিসির খবর বলছে, চলতি মৌসুমে দিল্লির বিদ্যুৎ চাহিদার রেকর্ড বেশ কয়েকবার ভেঙেছে। গত সোমবার দিল্লির বিমানবন্দরও কয়েক মিনিটের জন্য বিদ্যুৎ বিভ্রাটের কবলে পড়েছিল। সে সময় বেশ কয়েকটি টার্মিনালে নেতিবাচক প্রভাব পড়ে। 

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া ছবিতে দেখা গেছে যাত্রীরা দীর্ঘ সারিতে অপেক্ষা করছে। অন্যদিকে চেক-ইন কাউন্টারে বিমানবন্দর কর্মীদের কম্পিউটার চালু হওয়ার জন্য অপেক্ষা করতে দেখা গেছে। শুধু বিদ্যুৎ নয়, তীব্র পানি সংকটের সঙ্গেও লড়ছে দিল্লি। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া ভিডিওতে মানুষকে পানির জন্য দীর্ঘ সারিতে দাঁড়িয়ে অপেক্ষা করতে দেখা গেছে। সূত্র: বিবিসি

গাজায় ইসরায়েলি হামলা চলছে, উত্তেজনা লেবাননের সঙ্গেও

প্রকাশ: ২০ জুন ২০২৪, ০৮:৪১ এএম
আপডেট: ২০ জুন ২০২৪, ০৮:৪১ এএম
গাজায় ইসরায়েলি হামলা চলছে, উত্তেজনা লেবাননের সঙ্গেও

গাজায় হামলা অব্যাহত রেখেছে ইসরায়েলি বাহিনী। তাদের হামলায় নতুন করে অন্তত সাতজন নিহত হয়েছেন। এ ছাড়া ইসরায়েলি বাহিনীর গোলাবর্ষণের পর গাজার আল-মাওয়ানি শরণার্থী শিবিরে আগুন ধরে যায়।

ইসরায়েলি বাহিনীর বিরুদ্ধে গাজার কর্মকর্তারা স্বাস্থ্যকর্মীদের নির্যাতনের অভিযোগ তুলেছেন। ইসরায়েলের হাতে গাজার ৩১০ জন স্বাস্থ্যকর্মী বন্দি আছে বলেও জানিয়েছেন তারা। গাজার কর্মকর্তারা ওই নির্যাতিত বন্দিদের মুক্তি দাবি করেছেন। পাশাপাশি ওই বন্দিদের ভাগ্যে কী ঘটেছে, তা জানার জন্য আন্তর্জাতিক তদন্তও দাবি করেছেন।

গাজায় সহায়তার প্রবাহও কমে গেছে। খোদ জাতিসংঘ জানিয়েছে এ তথ্য। তারা বলছে, সাম্প্রতিক সপ্তাহগুলোতে সহায়তা প্রবাহের অবনতি হয়েছে নাটকীয়ভাবে। এতে করে গাজাবাসীর মধ্যে আতঙ্ক ও ক্ষুধা দেখা দিয়েছে।

গত বছরের ৭ অক্টোবর থেকে এ পর্যন্ত ইসরায়েলি গোলাবর্ষণে অন্তত ৩৭ হাজার ৩৭২ জন নিহত হয়েছেন। অন্যদিকে আহত হয়েছেন ৮৫ হাজার ৪৫২ জন। ইসরায়েলি হামলায় নিহতদের মধ্যে বেশির ভাগই বেসামরিক।

এদিকে লেবাননের দিকেও উত্তেজনা ক্রমশ বৃদ্ধি পাচ্ছে। ইসরায়েলি সামরিক বাহিনী দেশটিতে অভিযান পরিচালনা করতে চাচ্ছে। এ রকম এক অভিযানের পরিকল্পনায় ইসরায়েলি কর্মকর্তারা অনুমোদন দিয়েছেন বলেও জানা গেছে। এ ছাড়া লেবাননের বৈরুতে সফর করেছেন মার্কিন দূত অ্যামস হচস্টেইন।

হিজবুল্লাহ সূত্র জানিয়েছে, হচস্টেইন তাদের কাছে ইসরায়েলের স্পষ্ট বার্তা পৌঁছে দিয়েছেন। আর তা হলো, ইসরায়েল সত্যিকার অর্থেই যুদ্ধের পরিসীমা বৃদ্ধির কথা ভাবছে এবং সময় দ্রুত ফুরিয়ে আসছে।

যুক্তরাষ্ট্র সরাসরি হিজবুল্লাহর সঙ্গে কথা বলেনি। মার্কিন দূত আলাপ করেছেন লেবাননের পার্লামেন্টের স্পিকার নাবিহ বেরির সঙ্গে। তিনি হিজবুল্লাহর ঘনিষ্ঠ মিত্র হিসেবে পরিচিত। বেরি মার্কিন দূতের বার্তা পৌঁছে দিয়েছেন লেবাননের সশস্ত্র গোষ্ঠীর কাছে।

মূলত হিজবুল্লাহর ড্রোন দিয়ে তোলা কিছু ছবি প্রকাশের প্রতিক্রিয়ায় এ বার্তা দেওয়া দেওয়া হয়েছে। সেসব ছবিতে হাইফা এলাকায় অবস্থিত ইসরায়েলের বেশকিছু স্পর্শকাতর সামরিক ও বেসামরিক সাইট দেখা গেছে। ইসরায়েল কোনো অভিযান চালালে হিজবুল্লাহও যে পাল্টা আঘাত হানতে সক্ষম, সে বার্তাই যেন তারা দিয়েছে ওই ছবিগুলোর মধ্য দিয়ে। সূত্র: আল-জাজিরা

যুক্তরাষ্ট্রে বৈধতা পাবেন ৫ লাখ অবৈধ অভিবাসী

প্রকাশ: ২০ জুন ২০২৪, ০৮:১৭ এএম
আপডেট: ২০ জুন ২০২৪, ০৮:১৭ এএম
যুক্তরাষ্ট্রে বৈধতা পাবেন ৫ লাখ অবৈধ অভিবাসী
প্রতীকী ছবি

নির্বাচনকে সামনে রেখে পাঁচ লাখ অবৈধ অভিবাসীকে বৈধতা দিতে যাচ্ছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। অবৈধ অভিবাসী স্বামী-স্ত্রীকে বৈধতার লক্ষ্যে আবেদন করার জন্য একটি ‘প্যারোল ইন প্লেস’ পদক্ষেপের কথাও বিবেচনা করছে হোয়াইট হাউস।

হোয়াইট হাউসের বরাতে জানা গেছে, যারা অন্তত ১০ বছর ধরে যুক্তরাষ্ট্রে রয়েছেন, তাদের জন্য ওই প্রক্রিয়া প্রযোজ্য হবে। একই সঙ্গে বৈধভাবে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে কাজ করার অনুমতি পাবেন তারা। 

তবে কীভাবে প্রক্রিয়াটি সম্পন্ন হবে তা এখনো স্পষ্ট নয়।

হোয়াইট হাউস গত মঙ্গলবার জানায়, বাইডেন প্রশাসন আগামী মাসগুলোতে কিছু স্বামী-স্ত্রীকে প্রথমে স্থায়ী বসবাস এবং পরে নাগরিকত্বের জন্য আবেদনের অনুমতি দেবে। 

যুক্তরাষ্ট্রের প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের মতে, এই সংখ্যা পাঁচ লাখের মতো হতে পারে। এ ছাড়া ২১ বছরের কম বয়সী ৫০ হাজার যুবককেও বৈধতা দেওয়া হবে। সূত্র: এএফপি