ঢাকা ১ আষাঢ় ১৪৩১, শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪

‘ভর্তুকির অভাবে’ বন্ধ ইবির ক্যাফেটেরিয়া

প্রকাশ: ১০ জুন ২০২৪, ০৯:৫৮ এএম
আপডেট: ১০ জুন ২০২৪, ০৯:৫৯ এএম
‘ভর্তুকির অভাবে’ বন্ধ ইবির ক্যাফেটেরিয়া
ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ক্যাফেটেরিয়া ১৫ মাস ধরে এভাবেই তালাবদ্ধ আছে/ খবরের কাগজ

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) কেন্দ্রীয় ক্যাফেটেরিয়া ১৫ মাস ধরে বন্ধ থাকায় শিক্ষার্থীরা বিপাকে পড়েছেন। আবাসিক হল ও ক্যাম্পাস-পার্শ্ববর্তী হোটেলের মানহীন খাবার খেয়ে প্রায়ই অনেকে অসুস্থ হচ্ছেন। এ ছাড়া খাবারের পেছনে বাড়তি খরচ করতে গিয়ে অনেক শিক্ষার্থীকে অর্থকষ্টে ভুগতে হচ্ছে। টাকা বাঁচাতে তুলনামূলক কম দামের খাবার খাওয়ায় অনেকে পুষ্টির চাহিদা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। এতে তাদের মানসিক ও শারীরিক বিকাশ বাধাগ্রস্ত হচ্ছে।

ক্যাফেটেরিয়া সূত্র জানিয়েছে, বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বেঁধে দেওয়া দামে খাবার বিক্রি করতে গিয়ে তাদেরকে লোকসান গুনতে হয়। তাই বাধ্য হয়ে তারা ব্যবসা বন্ধ রেখেছেন। তবে ভর্তুকি পাওয়া গেলে এ সংকট কাটিয়ে ওঠা সম্ভব বলে মনে করেন তারা। যদিও সংশ্লিষ্ট বিভাগ থেকে জানানো হয়েছে, ভর্তুকি দেওয়ার সুযোগ নেই। তবে ক্যাফেটেরিয়া চালুর বিষয়ে উদ্যোগ নেওয়া হবে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ শুরু হলে বিশ্বব্যাপী দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির প্রভাব বাংলাদেশেও পড়ে। এর আঁচ লাগে ইবি ক্যাফেটেরিয়াতে। বিশ্ববিদ্যালয় থেকে খাবারের দাম আগে থেকেই নির্ধারিত ছিল। কিন্তু ওই দামে খাবার বিক্রি করতে গিয়ে ক্যাফেটেরিয়ার ম্যানেজারকে টানা লোকসান গুনতে হয়। বাধ্য হয়ে তখনকার ম্যানেজার আরিফুল ইসলাম কলম ২০২৩ সালের ১২ মার্চ ক্যাফেটেরিয়া বন্ধ করে দেন। পাঁচ মাস পর ম্যানেজার রাজিব মণ্ডলের হাত ধরে ক্যাফেটেরিয়া চালু হলেও মাস পেরোনোর আগেই তা আবারও বন্ধ হয়ে যায়। শিক্ষার্থীদের কম দামে খাবার খাওয়ার শেষ ভরসার জায়গাটি এখন পর্যন্ত তালাবদ্ধ রয়েছে। এলোমেলো চেয়ার-টেবিলের ওপর পড়েছে ধুলার আস্তর। 

কথা হয় বিশ্ববিদ্যালয়ের আল ফিকহ্ অ্যান্ড লিগ্যাল স্টাডিজ বিভাগের শিক্ষার্থী সবুজ হোসেন হৃদয়ের সঙ্গে। তিনি বলেন, ‘ক্যাম্পাসে ভালো খাবারের জন্য শিক্ষার্থীদের অধিকারের জায়গা ক্যাফেটেরিয়া। অথচ আমাদের ক্যাফেটেরিয়া দীর্ঘদিন ধরে বন্ধ। বাধ্য হয়ে আমরা হল ডাইনিং ও বাইরের মানহীন খাবার খেয়ে দিন পার করছি। দেশের কোনো বিশ্ববিদ্যালয়ে এতদিন ধরে ক্যাফেটেরিয়া বন্ধ থাকে কি-না আমার জানা নেই।’

ইংরেজি বিভাগের শিক্ষার্থী ফাবিহা বুশরা বলেন, ‘ক্যাম্পাসের অন্য জায়গায় ভালো খাবার পাওয়া যায় না। ক্যাফেটেরিয়া বন্ধ থাকায় বাধ্য হয়ে আমাদের হল ক্যান্টিন ও দোকানের মানহীন খাবার খেতে হয়। প্রায়ই আমরা অসুস্থ হয়ে পড়ি। শরীরে পুষ্টি চাহিদাও পূরণ হয় না। পড়াশোনায় এর প্রভাব পড়ে। অথচ ১৫ মাস ধরে ক্যাফেটেরিয়া বন্ধ। আমরা মানসম্মত খাবার থেকে বঞ্চিত হচ্ছি।’ 

ছাত্র ইউনিয়ন ইবি সংসদের সভাপতি মাহমুদুল হাসান বলেন, ‘আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাফেটেরিয়া দীর্ঘদিন ধরে বন্ধ রয়েছে। এটি কোনোভাবেই মেনে নেওয়া যায় না। সাধারণ শিক্ষার্থীরা ক্লাস ও পরীক্ষার ফাঁকে এখান থেকে মানসম্মত খাবার খেতে পারতেন। কিন্তু দীর্ঘদিন ধরে ক্যাফেটেরিয়া বন্ধ থাকায় তারা এ সুযোগ থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। বাধ্য হয়ে তাদের এখন বাইরের হোটেল থেকে অতিরিক্ত দামে খাবার কিনতে হচ্ছে। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের কাছে অনুরোধ থাকবে, শিক্ষার্থীদের কথা চিন্তা করে হলেও দ্রুত সময়ের মধ্যে ক্যাফেটেরিয়া চালু করতে প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নেওয়া হোক।’

ক্যাফেটেরিয়ার সাবেক ম্যানেজার আরিফুল ইসলাম কলম খবরের কাগজকে বলেন, ‘ছাত্র-শিক্ষক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র (টিএসসিসি) থেকে খাবারের দাম অনেক আগেই নির্ধারণ করে দিয়েছে। কিন্তু দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির বাজারে এই দামে খাবার বিক্রি করা সম্ভব না। এ ছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন অনুষ্ঠানে ক্যাফেটেরিয়া ছেড়ে দিতে হয়। এতে আমাদের নিজস্বতা বলে কিছু থাকে না। ক্যাফেটেরিয়া চালানোর জন্য কোনো ভর্তুকিও দেওয়া হয় না। 

টিএসসিসির পরিচালক চাইলেই এটি চালু হওয়া সম্ভব।’ প্রতি মাসে ২৫ হাজার টাকা ভর্তুকি পেলে ক্যাফেটেরিয়া চালানো সম্ভব বলে মনে করেন তিনি।

ফলিত পুষ্টি ও খাদ্য প্রযুক্তি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. তৌফিক এলাহী খবরের কাগজকে বলেন, ‘প্রাপ্তবয়স্ক একজন মানুষের শরীরে প্রতিদিন ৬০ থেকে ৭০ গ্রাম প্রোটিনের প্রয়োজন। অথচ ক্যাফেটেরিয়া বন্ধ থাকার কারণে শিক্ষার্থীরা হলসহ বাইরের যে খাবারগুলো খাচ্ছেন তাতে তাদের দৈনন্দিন পুষ্টির চাহিদা পূরণ হচ্ছে না। মানসম্মত খাবারের অভাবে তারা শারীরিক ও মানসিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন। এতে তারা লেখাপড়ায় শতভাগ মনোনিবেশ করতে পারছেন না।’

এ বিষয়ে নতুন নিয়োগপ্রাপ্ত টিএসসিসির পরিচালক অধ্যাপক ড. মহববত হোসেন বলেন, ‘এখনো টিএসসিসির পরিচালকের দায়িত্ব হস্তান্তর হয়নি। আমার কার্যক্রম শুরু হলে প্রথম কাজ হবে মানসম্মত ও স্বাস্থ্যসম্মত খাবার পরিবেশনের জন্য পুনরায় ক্যাফেটেরিয়া চালু করা।’

টিএসসিসির সাবেক পরিচালক অধ্যাপক ড. বাকী বিল্লাহ বলেন, ‘ক্যাফেটেরিয়ার জন্য কোনো ভর্তুকি দেওয়া হয় না। যারা চালানোর দায়িত্ব নিয়েছিলেন, তারা লাভের মুখ দেখতে না পাওয়ার কথা জানিয়ে ক্যাফেটেরিয়া চালাতে অপারগতা প্রকাশ করেছেন।’

ঈদে ঢাকায় অবস্থানরত শিক্ষার্থীদের আপ্যায়ন করবে জবি

প্রকাশ: ১৫ জুন ২০২৪, ১২:৩৬ এএম
আপডেট: ১৫ জুন ২০২৪, ১২:৩৬ এএম
ঈদে ঢাকায় অবস্থানরত শিক্ষার্থীদের আপ্যায়ন করবে জবি
খবরের কাগজ গ্রাফিকস

ঈদুল আজহা উপলক্ষে প্রথমবারের মতো শিক্ষার্থীদের জন্য ব্যতিক্রম উদ্যোগ নিয়েছে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। বাড়ি যেতে না পারা শিক্ষার্থীদের জন্য ঈদের দিন ঢাকায় ও ছাত্রী হলে অবস্থানরত সব শিক্ষার্থীদের আপ্যায়ন করাবে প্রশাসন। এর জন্য ৫টি খাসির ব্যবস্থা করা হয়েছে।

শুক্রবার (১৪ জুন) বিষয়টি খবরের কাগজকে নিশ্চিত করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. সাদেকা হালিম। তিনি বলেন, ঈদে ঢাকায় অবস্থান করা শিক্ষার্থীদের জন্য দুপুরের খাবারের আয়োজন করা হবে। হলের শিক্ষার্থীদের এবং সাধারণ শিক্ষার্থীদের তালিকা করতে প্রশাসনকে নির্দেশনা দিয়েছি।

এ বিষয়ে প্রক্টর অধ্যাপক ড. জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, ঈদের দিন অনেক শিক্ষার্থী বাড়ি যেতে পারে না। অনেকে হলে থাকে। এর মধ্যে ভিন্ন ধর্মের শিক্ষার্থীরাও রয়েছে। ঈদে বাড়ি যেতে না পারায় কেউ যেন আনন্দ থেকে বঞ্চিত না হয় সে জন্য উপাচার্য সবার জন্য দুপুরে খাবারের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। এ জন্য ৫টি খাসির ব্যবস্থা করা হয়েছে। থাকবে পোলাও, ডিমের কোরমাসহ আরও নানা পদের খাবার। ক্যাম্পাসে বা ঢাকায় অবস্থানরত কর্মকর্তা-কর্মচারীদেরও এ আপ্যায়ন করা হবে। এর মাধ্যমে জবিতে প্রথমবারের মতো নতুন এক দৃষ্টান্ত স্থাপন হবে।

জাককানইবিসাস ও বাকৃবিসাসের তরুণ সাংবাদিকদের মিলনমেলা

প্রকাশ: ১৪ জুন ২০২৪, ০২:২৪ পিএম
আপডেট: ১৪ জুন ২০২৪, ১০:০৬ পিএম
জাককানইবিসাস ও বাকৃবিসাসের তরুণ সাংবাদিকদের মিলনমেলা

জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি (জাককানইবিসাস) ও বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির (বাকৃবিসাস) তরুণ সাংবাদিকদের মধ্যে প্রীতি মিলনমেলা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (৬ জুন) বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে (বাকৃবি) এ মিলনমেলা উপলক্ষে দিনব্যাপী নানা আয়োজন করা হয়। 

এর মধ্যে মৌসুমি ফল দিয়ে আপ্যায়ন, ক্রিকেট ম্যাচ, নৌকা ভ্রমণ এবং রাতের প্রীতিভোজের মধ্য দিয়ে আয়োজন শেষ হয়।

প্রীতিভোজে উপস্থিত ছিলেন বাকৃবির ভারপ্রাপ্ত উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আব্দুল আউয়াল। 

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন বাকৃবি সাংবাদিক সমিতির সাবেক সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক দীন মোহাম্মদ দীনু। বর্তমানে তিনি বাকৃবির জনসংযোগ দপ্তরের উপ-পরিচালকের দায়িত্ব পালন করছেন। 

এ ছাড়া বাকৃবিসাস ও জাককানইবিসাসের সাবেক ও বর্তমান সদস্যরাও উপস্থিত ছিলেন।

কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আসলাম বেগ বলেন, ‘সুন্দর এবং আনন্দঘন দিন কেটেছে আমাদের। বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির আতিথেয়তায় আমরা মুগ্ধ। কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির সঙ্গে নজরুল বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির অতীতে যেমন সৌহার্দপূর্ণ সম্পর্ক ছিল, ভবিষ্যতেও এ ধারাবাহিকতা অব্যাহত থাকবে বলে আশা করছি।’

জান্নাতী/পপি/

সড়কে নিহত চুয়েটের ২ শিক্ষার্থীর পরিবার পেল ২০ লাখ টাকা

প্রকাশ: ১৪ জুন ২০২৪, ১১:১৬ এএম
আপডেট: ১৪ জুন ২০২৪, ১১:১৬ এএম
সড়কে নিহত চুয়েটের ২ শিক্ষার্থীর পরিবার পেল ২০ লাখ টাকা
নিহতের পরিবারের কাছে অনুদান তোলে দিচ্ছেন জেলা প্রশাসক। ছবি: খবরের কাগজ

সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত চুয়েটের দুই শিক্ষার্থীর পরিবারকে ২০ লাখ টাকা অনুদান দেওয়া হয়েছে। আহত অপর শিক্ষার্থীর পরিবারকে দেওয়া হয়েছে ২ লাখ টাকা।

বৃহস্পতিবার (১৩ জুন) বিকেলে চট্টগ্রাম সার্কিট হাউসের সম্মেলন কক্ষে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত চুয়েটের দুই ছাত্রের পরিবার ও আহত ছাত্রের পরিবারের কাছে অনুদানের চেক হস্তান্তর করা হয়।

এ সময় জেলা প্রশাসক (ডিসি) আবুল বাসার মোহাম্মদ ফখরুজ্জামান বলেন, ‘বাসের সঙ্গে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (চুয়েট) দুই ছাত্র নিহত ও অপর ছাত্র আহত হওয়ার ঘটনা অত্যন্ত দুঃখজনক। সড়কে অকালমৃত্যু আমরা কখনো কামনা করি না। সড়ক দুর্ঘটনায় কারও অকালমৃত্যু হলে ক্ষতিপূরণ দেওয়ার কোনো সুযোগ নেই। এর পরও সরকার, জেলা প্রশাসন ও বাস মালিক সমিতি ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের পাশে দাঁড়িয়েছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘আগামী দুই মাসের মধ্যে চুয়েটের সড়কটি প্রশস্তকরণ করা হবে। নিহত দুই ছাত্র শান্ত সাহা ও তৌফিকুর রহমানের নামে এ সড়কের নামকরণ করার বিষয়ে নিহত ছাত্রদ্বয়ের অভিভাবকের অনুরোধের প্রেক্ষিতে আমরা সড়ক ও মহাসড়ক বিভাগকে প্রস্তাবনা পাঠাব। দুর্ঘটনায় যে দুইজন ছাত্র মারা গেছে বিশ্ববিদ্যালয়ে তাদের নামে কোনো ভবন বা চত্বর নামকরণ করা যায় কি-না জেলা উন্নয়ন সমন্বয় সভায় বিষয়টি উপস্থাপনসহ কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হবে।’

চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (চুয়েট) উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ রফিকুল আলম বলেন, ‘দুই ছাত্র নিহত ও একজন ছাত্র আহত হওয়ার ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয়ে উদ্ভূত পরিস্থিতিতে সংশ্লিষ্ট সবাইকে নিয়ে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক ও জেলা ম্যাজিস্ট্রেট তাৎক্ষণিক বৈঠক করেন। এ সময় আমাদের ছাত্ররা বেশকিছু দাবি উত্থাপন করে। তিনি তাদের দাবিগুলো পূরণের অঙ্গীকার করেন। তিনি (ডিসি) কথা রেখেছেন।’

অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট একেএম গোলাম মোর্শেদ খানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত চেক বিতরণ অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. জামাল উদ্দিন আহমদ, চুয়েট ছাত্র কল্যাণ পরিষদের পরিচালক অধ্যাপক মো. রেজাউল করিম।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন রাউজান উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) অংগ্যজাই মারমা, বিআরটিএর সহকারী পরিচালক রায়হানা আক্তার উর্থী।

অনুষ্ঠানে ছেলের মৃত্যুর স্মৃতিচারণ করতে গিয়ে কান্নায় ভেঙে পড়েন নিহত ছাত্র শান্ত সাহার বাবা কাজল সাহা ও নিহত তাওফিক হোসেনের বাবা মোহাম্মদ দেলোয়ার হোসেন। 

গত ২২ এপ্রিল বিকেল সাড়ে তিনটার দিকে মোটরসাইকেলে ঘুরতে বের হয়ে রাঙ্গুনিয়া থানার সত্য পীরের মাজার গেটসংলগ্ন সড়কে বাসের ধাক্কায় প্রাণ হারান চুয়েটের পুরকৌশল বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী শান্ত সাহা এবং গুরুতর আহত অবস্থায় হাসপাতালে নেওয়ার পথে মারা যান একই বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র তাওফিক হোসেন। এ ছাড়া গুরুতর আহত হন পুরকৌশল বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র মো. জাকারিয়া হাসান হিমু।

ইফতেখারুল/ইসরাত চৈতী/

সাউদার্ন ইউনিভার্সিটির ৩৮তম একাডেমিক কাউন্সিল সভা

প্রকাশ: ১৩ জুন ২০২৪, ০৬:১১ পিএম
আপডেট: ১৩ জুন ২০২৪, ০৬:১১ পিএম
সাউদার্ন ইউনিভার্সিটির ৩৮তম একাডেমিক কাউন্সিল সভা
ছবি : খবরের কাগজ

সাউদার্ন ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশ’র ৩৮তম একাডেমিক কাউন্সিলের সভা বুধবার (১২ জুন) বিকালে, বায়েজিদ আরেফিন নগরে বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থায়ী ক্যাম্পাসের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত হয়।

উপাচার্য (ভারপ্রাপ্ত) ড. শরীফ আশরাফউজ্জামানের সভাপতিত্বে আয়োজিত সভায় উপস্থিত ছিলেন ট্রাস্ট সেক্রেটারি অধ্যাপক সরওয়ার জাহান, ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. শরীফুজ্জামান, কলা, সমাজ বিজ্ঞান ও আইন অনুষদের ডিন অধ্যাপক চৌধুরী মোহাম্মদ আলী, অধ্যাপক ড. ইসরাত জাহান, আইকিউএসি’র পরিচালক অধ্যাপক ড. মো. শওকতুল মেহের, রেজিস্ট্রার, ডেপুটি-রেজিস্ট্রার, পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক এবং বিভিন্ন বিভাগের বিভাগীয় প্রধানগণসহ অন্যান্যরা। 

সভায় স্প্রিং সেমিস্টার ২০২৪ এর শিক্ষার্থীদের অ্যাডমিশন ও এনরোলমেন্ট রিপোর্ট অনুমোদন, স্প্রিং ও ফল ২০২৩ এর স্নাতক ও স্নাতকোত্তর গ্র্যাজুয়েট লিস্ট অনুমোদন, একাডেমিক বিবিধ বিষয় নিয়ে আলোচনাসহ বিভিন্ন বিভাগের একাডেমিক সভার গৃহীত প্রস্তাবগুলো পাশ হয়। 

সবার সম্মিলিত প্রচেষ্টায় গুণগত ও যুগোপযোগী শিক্ষার মাধ্যমে সাউদার্ন ইউনিভার্সিটি এগিয়ে যাবে এ প্রত্যাশা ব্যক্ত করে সভার সমাপ্তি ঘোষণা করেন উপাচার্য (ভারপ্রাপ্ত) ড. শরীফ আশরাফউজ্জামান। বিজ্ঞপ্তি

জবিতে প্রথম ধাপে ভর্তি শেষে ফাঁকা ২৪৩ আসন

প্রকাশ: ১২ জুন ২০২৪, ০১:১৯ পিএম
আপডেট: ১২ জুন ২০২৪, ০৩:৫৮ পিএম
জবিতে প্রথম ধাপে ভর্তি শেষে ফাঁকা ২৪৩ আসন

গুচ্ছভুক্ত ২৪ বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০২৩-২৪ শিক্ষাবর্ষে স্নাতক (সম্মান) প্রথম ধাপের ভর্তি শেষে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে ২৪৩টি আসন ফাঁকা রয়েছে।

বুধবার (১২ জুন) ভর্তির টেকনিক্যাল কমিটির আহ্বায়ক অধ্যাপক ড. মো. জুলফিকার মাহমুদ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, জবিতে মোট আসন দুই হাজার ৮১৫টি। বিশেষায়িত বিভাগগুলোতে ১৬৫টি আসন রয়েছে। এই বিশেষায়িত আসন ছাড়া দুই হাজার ৬৫০টি আসনের বিপরীতে প্রথম ধাপে ভর্তি হয়েছেন দুই হাজার ৪০৭ জন শিক্ষার্থী।

এর আগে গুচ্ছভর্তি পরীক্ষায় উত্তীর্ণদের মধ্যে জবিতে সর্বোচ্চ ২৯ হাজার ৬০৩ জন ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থী আবেদন করেন।

ভর্তিসংক্রান্ত যাবতীয় বিষয় https://jnu.ac.bd/ ওয়েবসাইটে জানা যাবে।

মুজাহিদ/ইসরাত চৈতী/অমিয়/