ঢাকা ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, শনিবার, ২৫ মে ২০২৪

বেইজিং অটো শোতে বৈদ্যুতিক গাড়ির আধিপত্য

প্রকাশ: ০৩ মে ২০২৪, ০১:৩৪ পিএম
বেইজিং অটো শোতে বৈদ্যুতিক গাড়ির আধিপত্য
২০২৪ বেইজিং অটো শো

চীনের বৃহত্তম গাড়ি প্রদর্শনী ‘২০২৪ বেইজিং অটো শো’ গত বৃহস্পতিবার ২৫ এপ্রিল শুরু হয়েছে। নয় দিনব্যাপী এ আয়োজন শেষ হবে আগামী কাল ৪ মে। এ প্রদর্শনীতে বিশ্বের বড় বড় গাড়ি নির্মাতা প্রতিষ্ঠানগুলো তাদের সর্বাধুনিক বৈদ্যুতিক গাড়ি প্রদর্শন করছে। এটি ইঙ্গিত দিচ্ছে, বিশ্বের বৃহত্তম গাড়ি বাজার এখন সম্পূর্ণ বৈদ্যুতিক গাড়ির দিকে ঝুঁকেছে। গত বছরের সাংহাই অটো শোতে ৯৩টি নতুন মডেল প্রদর্শিত হয়েছে। তবে এবার বেইজিং অটো শোতে মোট ১১৭টি নতুন মডেলের গাড়ি উন্মোচন করা হবে বলে আয়োজকরা জানিয়েছেন। এ ছাড়া এই আয়োজনে মোট ২৭৮টি নতুন নিউ এনার্জি ভেহিকল প্রদর্শিত হবে, যা গত বছরের চেয়ে সাতটি বেশি।

এই প্রদর্শনীটি এমন সময়ে হচ্ছে, যখন এপ্রিলের শুরুর দিকে নিউ এনার্জি ভেহিকল বিক্রি মাইলফলকে পৌঁছেছে। গাড়িসংশ্লিষ্ট সংগঠনের তথ্য অনুসারে,
বর্তমানে চীনে বিক্রি হওয়া গাড়ির ৫০ শতাংশের বেশি নিউ এনার্জি ভেহিকল।

গাড়ি নির্মাতা সংস্থাগুলো নতুন মডেল ও সাশ্রয়ী মূল্যে এগিয়ে থাকার চেষ্টা করছে। এক বছর ধরে চলা মূল্যযুদ্ধে লাভের অঙ্ক কমিয়ে দিলেও বেড়েছে বিক্রি।

চীনা ইলেকট্রিক গাড়ি নির্মাতা নিও (Nio)-এর প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা উইলিয়াম লি রয়টার্সকে জানিয়েছেন, ‘বেইজিং অটো শোতে পেট্রোলচালিত গাড়ির প্রতি কোনো আগ্রহ নেই। সবাই কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা ও বৈদ্যুতিক গাড়ির ক্ষেত্রে সর্বশেষ প্রযুক্তি খুঁজছে।’

এবারের বেইজিং অটো শোতে আকর্ষণীয় গাড়িগুলো:

ভিডব্লিউ আইডি কোড


জার্মান গাড়ি নির্মাতা ভক্সওয়াগন (ভিডব্লিউ) সম্পূর্ণ বৈদ্যুতিক গাড়ি সিরিজ আইডি লাইনে এখন পর্যন্ত সবচেয়ে আকর্ষণীয় মডেল ‘আইডি কোড’। এটি নিচু আসনের গাড়ি, যা চীনের নতুন এসইউভি প্রজন্মের পূর্বাভাস দেয়। ভক্সওয়াগনের সিইও টমাস শেফার জানিয়েছেন, ‘এটি চীনা গ্রাহকদের চাহিদা ও পছন্দ পূরণের জন্য তৈরি করা হয়েছে।’ তবে প্রদর্শনীতে আসা ইউরোপীয় দর্শকরা আশা করছেন, এই গাড়ির নকশা ইউরোপে ভক্সওয়াগনের আগামী প্রজন্মের আইডি এসইউভিগুলোর নকশাকেও প্রভাবিত করবে।


ডেনজা জেড৯জিটি


বিওয়াইডির বিলাসবহুল গাড়ি ব্র্যান্ড ডেনজা ফ্ল্যাগশিপ গাড়ি ‘জেড৯জিটি’ মডেলের মাধ্যমে নিজস্ব স্বতন্ত্র ডিজাইন ও ব্র্যান্ড পরিচিতি তৈরি করেছে। এটি ব্র্যান্ডটিকে অন্যান্য চীনা গাড়ি নির্মাতা সংস্থা থেকে আলাদা করেছে। ব্র্যান্ডটি প্রায়শই পোরশের বিভিন্ন মডেলের নকশা অনুকরণ করে গাড়ি তৈরি করেছে। ডেনজার এই স্বাতন্ত্র্যের পেছনে রয়েছেন জার্মান ডিজাইনার ওলফগ্যাং এগার। যিনি এর আগে আলফা রোমিও ও অডির মতো বিখ্যাত গাড়ি কোম্পানির জন্য কাজ করেছেন।

শাওমি এসইউ৭


জনপ্রিয় চীনা মোবাইল ফোন ও কনজিউমার ইলেকট্রনিক্স কোম্পানি শাওমি প্রথম ‘এসইউ৭’ মডেলের গাড়ির মাধ্যমে বাজারে আলোড়ন সৃষ্টি করেছে। এই গাড়িটি বর্তমান পোরশের মডেলগুলোর থেকে অনুপ্রাণিত বলে মনে করা হচ্ছে। এটি চীনা বাজারে ইতিমধ্যে ব্যাপক জনপ্রিয়তা লাভ করেছে। বেইজিং অটো শো শুরুর আগের দিন পর্যন্ত এসইউ৭ গাড়ির ৭৫ হাজার ৭২৩টি অর্ডার জমা পড়েছে। মডেলটি চালু হওয়ার মাত্র ২৮ দিনের মধ্যে ৫ হাজার ৭৮১টি গাড়ি ডেলিভারি দেওয়া হয়েছে।

জাহ্নবী

 

গাড়িতে হাইড্রোজেন জ্বালানি বহনে সক্ষম প্রযুক্তি উদ্ভাবন করল চীন

প্রকাশ: ২৪ মে ২০২৪, ০১:৪২ পিএম
গাড়িতে হাইড্রোজেন জ্বালানি বহনে সক্ষম প্রযুক্তি উদ্ভাবন করল চীন
ছবি: সংগৃহীত

চীন প্রথমবারের মতো ভারী যানবাহনে তরল হাইড্রোজেন জ্বালানি বহনে সক্ষম একটি ব্যবস্থা উদ্ভাবন করেছে। ধারণা করা হচ্ছে এই প্রযুক্তি দেশটির পরিবহন খাতে বৈপ্লবিক পরিবর্তন আনবে। প্রযুক্তিটির নির্মাতা প্রতিষ্ঠান চায়না অ্যারোস্পেস সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজি করপোরেশন (সিএএসসি) চলতি মাসের ১০ তারিখে এ তথ্য জানিয়েছে। নতুন এ সিস্টেমটি ভারী ট্রাকে ব্যবহার করা হবে। এতে একবার হাইড্রোজেন জ্বালানি ভরে ১ হাজার কিলোমিটারেরও বেশি দূরত্ব অতিক্রম করা যাবে।

বিশ্বে হাইড্রোজেনচালিত যানবাহনের বিকাশে অগ্রগামী দেশে পরিণত হয়েছে চীন। দেশটিতে বর্তমানে বিশ্বের বৃহত্তম হাইড্রোজেন ফুয়েলিং স্টেশন নেটওয়ার্ক রয়েছে। এ ছাড়া ২০৩০ সালের মধ্যে ১০ লাখ হাইড্রোজেন চালিত যানবাহন রাস্তায় চালানোর লক্ষ্য নির্ধারণ করেছে দেশটি।

মূলত চীনের পরিবহন খাতকে আরও বেশি পরিবেশবান্ধব করার প্রচেষ্টার গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ এটি। দেশটির সরকার হাইড্রোজেনচালিত যানবাহনের গবেষণা ও উন্নয়নে ব্যাপক বিনিয়োগ করছে। তারই ধারাবাহিকতায় এবার ভারী যানবাহনের জন্য তরল হাইড্রোজেন জ্বালানি ব্যবস্থা উদ্ভাবন করেছে চীনের রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন সংস্থাটি। এই ব্যবস্থাটি পরিবেশবান্ধব ও প্রথাগত জীবাশ্ম জ্বালানির ওপর নির্ভরতা কমাতে সাহায্য করবে। সম্প্রতি ১০০ কেজি তরল হাইড্রোজেন ধারণক্ষমতাসম্পন্ন এ সিস্টেমটি তৈরিতে সম্পূর্ণ দেশীয় প্রযুক্তি ব্যবহার করা হয়েছে।

রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন সংস্থা সিএএসসি জানিয়েছে, আগের চেয়ে এর ধারণক্ষমতা ২০ শতাংশ বেশি হয়েছে। তবে নতুন এ ব্যবস্থায় বাড়তি জায়গা লাগছে না। এ ব্যবস্থায় আগের থেকে ৩০ শতাংশ ব্যয় কমেছে। এ ছাড়া নতুন এ সিস্টেম ১০০ কেজি পর্যন্ত তরল হাইড্রোজেন জ্বালানি ধারণক্ষমতাসহ এই সিস্টেমের গুণমান, হাইড্রোজেন স্টোরেজ ঘনত্ব ও রিফিলের সময়ের ক্ষেত্রে আন্তর্জাতিক মানদণ্ড অনুযায়ী তৈরি করা হয়েছে। এই উদ্ভাবনটি ভারী যানবাহন শিল্পে বিপ্লব ঘটাতে পারে, যা পরিবেশ দূষণ এবং জীবাশ্ম জ্বালানির ওপর নির্ভরতা কমাতে সাহায্য করবে।

হাইড্রোজেনকে মাইনাস ২৫২ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রায় শীতল করলে পাওয়া যাবে তরল হাইড্রোজেন। এটি একটি উচ্চ শক্তির জ্বালানি, যার বিভিন্ন ব্যবহার রয়েছে। তবে এটি ব্যবহারে বেশ ঝুঁকিও রয়েছে। যানবাহনে তরল হাইড্রোজেন জ্বালানি হিসেবে ব্যবহারের কিছু ঝুঁকি রয়েছে। এটি দ্রুত গরম হয়ে বিস্ফোরিত হতে পারে। তরল হাইড্রোজেন পরিবহন করা কঠিন ও ব্যয়বহুল হয়ে থাকে। 

এটি বিশেষভাবে ডিজাইন করা ট্যাংক ও ট্রাকগুলোয় পরিবহন করতে হয়। তরল হাইড্রোজেন রিফুয়েলিং স্টেশনগুলো সাধারণত গ্যাসোলিন স্টেশনগুলো তুলনায় অনেক বেশি ব্যয়বহুল হয়। এই ঝুঁকিগুলো সত্ত্বেও তরল হাইড্রোজেন শক্তিশালী জ্বালানি, যা পরিবহন শিল্পে বিপ্লব ঘটাতে পারে। সূত্র: সিসিটিভি

শুরু হয়েছে ১৭তম ঢাকা মোটর শো ২০২৪

প্রকাশ: ২৪ মে ২০২৪, ০১:৩৫ পিএম
শুরু হয়েছে ১৭তম ঢাকা মোটর শো ২০২৪
ছবি: সংগৃহীত

নতুন গাড়ি ও মোটরসাইকেলসহ নানারকম অটোমোবাইল পণ্য নিয়ে শুরু হয়েছে ৩ দিনব্যাপী ১৭তম ঢাকা মোটর শো-২০২৪। গতকাল বৃহস্পতিবার রাজধানীর পূর্বাচলের বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশ-চায়না ফ্রেন্ডশিপ এক্সিবিশন সেন্টারে শুরু হয়েছে এই আয়োজন।

এ প্রদর্শনী চলাকালে একই সঙ্গে অনুষ্ঠিত হচ্ছে ‘অষ্টম ঢাকা বাইক শো-২০২৪’, ‘সপ্তম ঢাকা অটো পার্টস শো-২০২৪’, ‘ষষ্ঠ ঢাকা কমার্শিয়াল অটোমোটিভ শো-২০২৪’ ও ‘প্রথম ইলেকট্রিক ভেহিকেল বাংলাদেশ এক্সপো-২০২৪’।

অন্যদিকে সেমস-গ্লোবাল ও বাংলাদেশ মোটর স্পোর্টসের যৌথ আয়োজনে বাণিজ্যমেলা প্রাঙ্গণে গতকাল প্রথমবারের মতো আয়োজন করা হয় মোটরবাইক প্রতিযোগিতা ‘প্রথম ডার্ট ট্র্যাক চ্যাম্পিয়নশিপ-২০২৪’। একই সঙ্গে ২৫ মে অনুষ্ঠিত হবে অফ-রোড রেসট্র্যাক সম্পর্কিত বাংলাদেশের জমকালো মোটর স্পোর্টস প্রতিযোগিতা ‘চতুর্থ র‍্যালিক্রস চ্যাম্পিয়নশিপ-২০২৪’। প্রতিযোগিতা দুটি সরাসরি সম্প্রচার করবে টি-স্পোর্টস।